অপেক্ষায় আছি, তোমার হাত ধরে প্রথম বৃষ্টিতে ভেজার

অপেক্ষায় আছি, তোমার হাত ধরে প্রথম বৃষ্টিতে ভেজার

শ্রাবণের ঝুম বৃষ্টি, ভরা চাঁদের আলো, আর গোলাপ।

আমার ছোট্ট দুনিয়াকে আলোকিত করে দেয়ার জন্য যথেষ্ট । এইসব মুহূর্তগুলো মনে হয়

সব সময় একা একা অনুভব করতে ভাল লাগে না । হঠাৎই মনে হয় পাশে কেউ থাকলে

মন্দ হত না! কারো হাত শক্ত করে জড়িয়ে ধরে জল – জোছনার আলোর খেলা দেখা বুঝি

অন্যরকম মাদকতায় ভরা হবে। ব্যাপারটা ভাবতে বেশ লাগে। মাঝে মাঝে বন্ধুদের কাছে

শুনতাম তাদের স্বপ্নের রাজপুত্র বা রাজকন্যারা কেমন হবে, শুনতে মজাই লাগত। সে

সময় টুকটাক আমিও ভাবতাম, আসলেই কেমন হবে আমার স্বপ্নচারী?

নাহ, ঘোড়ায় চড়া রাজকন্যা মনে হয় দরকার নেই। দরকার এমন একজন যার একহাতে

পরম নিশ্চিন্তে আমি আমার স্বপ্নগুলো রেখে দেব, আরেক হাত দিয়ে তার স্বপ্নগুলোকে ধরে

রাখব। এভাবে চলতে চলতে জীবনের বাইশটি বসন্ত অতিক্রম করেছি।

এরপর হঠাৎই তুমি এলে। ভালবাসার সংজ্ঞাটা কেমন যেন বদলে গিয়েছিল। হয়ত বলা

নেই কওয়া নেই…….. কে জানত এভাবে টুপ করে কাউকে ভালবেসে ফেলবো, আর সেটা

জানিয়েও দেব। এইতো সেদিনও আমরা বন্ধু ছিলাম। ঠাস করে আমি একদিন বললাম,

‘রাজকন্যা তোমায় ভালবাসি।’ তুমিও অবাক হয়ে গেলে। আমি মনের চোরাগলিগুলো

আঁতিপাঁতি খুঁজে দেখার চেষ্টা করলাম, তুমি আছ কি সেখানে? আছ, বেশ ভালভাবেই

আছ। অবাক কাণ্ড! তোমাকে না বললেও কি বুঝতে? মনে হয় না। এখন তো প্রায়ই মনে

হয় মনের গহীন কোণ থেকে তোমায় সত্যি সত্যি হয়ত চেয়েছিলাম। যদিও এখনো পাইনি তোমায়।

টুকরো টুকরো স্বপ্নগুলো এবার তোমাকে সঙ্গে নিয়ে দেখি। ছোট ছোট ভালবাসার

জিনিসগুলোও তোমায় ছাড়া এখন অসম্পূর্ণ । চাঁদের হাসি কিংবা ঘন বরষা সবই কেমন

জানি পানসে । লাল গোলাপগুলো যেন আমার হাতে এসে তোমার কথাই বলে। তোমার

কথা খুব মনে হয়। এখনও যে তোমার হাত থেকে গোলাপ নেয়া হয়নি, তোমাকে দেয়াও

হয়নি! প্রিয় কোন কিছু নিজের সবচাইতে কাছের মানুষের কাছ থেকে পাওয়ার আনন্দ কি

অসাধারণ জানো? মাঝে মাঝে কল্পনা করি , হঠাৎই তুমি একদিন গোলাপের তোড়া নিয়ে

আমার দিকে হাতটা বাড়িয়ে দেবে । আর আমি অবাক বিস্ময়ে তোমার দিকে তাকিয়ে

থাকব। ভাববো, স্বপ্ন তাহলে সত্যিও হয়!!! পরক্ষণেই হয়ত খুশিতে চোখের কোনায় পানি

চলে আসবে এই ভেবে, ওই সামান্য গোলাপের মধ্যে শুধুমাত্র তোমার আর আমার জন্য

সমস্ত ভালবাসা আছে। ঐ ফুলের ভেতরে পেয়ে যাব আমি। আর তুমি কি করবে তখন?

জানো, আমি প্রায়ই স্বপ্নে দেখি, আকাশরঙা শাড়ি পরে তুমি আমার সামনে দাঁড়াবে। তখন

 

তোমার হাত থেকে একটা গোলাপ চাই। ভাবতে পার, কি মানুষ রে বাবা! গোলাপ, গোলাপ

 

করে মাথা খারাপ করে দিল। হতেই পারে। এই পাগলামিগুলো যদি তোমার সাথে না করি

তো আর কার সাথে করব? কেউ কখনো আমাকে যে এই পাগলামো করার সুযোগ দেয়নি।

পাগলামোগুলো করতে যে আমার ভীষণ পছন্দ

এখনও তো তোমার চুড়ি পড়া হাত ধরে বৃষ্টিস্নান করা হয়নি, কুয়াশা ঢাকা ভোরে শিশির

পায়ে হাঁটা হয়নি কিংবা ওই জোছনা রাতে আলোয় ভেজা … আরও কত শত পাগলামি যে

বাকি! পাগলামি শুরু করার অধিকারটা কি দেবে তুমি আমায়? কখনো দেয়নি কেউ

আমাকে… তুমি দেবে?

আমি কিন্তু অপেক্ষায় আছি, তোমার হাত ধরে প্রথম বৃষ্টিতে ভেজার……

 

Author: অনন্যা

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Related posts