একুশ এক বিপুল বিস্ময়

একুশ এক বিপুল বিস্ময়

দিগন্ত বিস্তৃত সবুজের সমারোহে
ফাগুনের শাখায় যখন ফুটেছে বসন্ত
শিমুল পলাশ শহীদের রক্তে লাল
মায়ের ভাষার দাবিতে উত্তাল রাজপথ রক্তের ধারায় প্রবাহিত হৃদয়ের ক্ষরণ
মিছিলের সারিতে সারিতে ছাত্রের বিদগ্ধ উচ্চারণ!
যখন বজ্রমুষ্ঠি স্লোগানে আকাশ প্রকম্পিত–
মঞ্চের মালঞ্চে যখন কাঞ্চন উদভ্রান্ত
তখন পুলিশের কার্তুজে বড় ভয়ানক গর্জন।
ভয় পেয়ো না মা।
কে কবে কিছু না চেয়ে পেয়েছে অনন্ত অধিকার?
আমরা ছিনিয়ে আনব আমাদের একান্ত    হৃদয়ের ভাষা–
আমরা ছিনিয়ে আনবো আমাদের জন্মাবধি মানচিত্র স্বাধীকার–
যেভাবে মেঘ থেকে বৃষ্টিকে ছিনিয়ে আনে নির্দ্বিধায়।
এবং উঙ্কুরোদগম বৃক্ষ থেকে প্রশাখা।

তুমি সাহস দাও
সীমান্তের উত্তাল দিগন্তে ঈগলের মতো প্রসারিত ডানায় আমরা উড়ে যাবো–
পৃথিবীর দিগ্বিজয়ী আনন্দের শেষ মুহূর্তে।

অতএব আমরা জানি, একুশ মানে মাথা উঁচু সাহসী সময়–
একুশ মানে অন্যায়ের বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ–
একুশ মানে একাত্তরের অঙ্কুরিত স্বাধীনতার স্বপ্নবীজ!
আর  ফেব্রুয়ারির একুশ তারিখ আন্তর্জাতিক ঠিকানার এক বিপুল বিস্ময়!

ড. শাহনাজ পারভীন
শাহনাজ পারভীন

Author: ড. শাহনাজ পারভীন

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Related posts