কুতুপালং থেকে বহেড়াতলায়

কুতুপালং থেকে বহেড়াতলায়

ফিরছি সমুদ্রপাড়- বায়ুসেবী টেকনাফ থেকে।
কুতুপালং-উখিয়া শরণার্থীপাড়া- এবার বিদায়।
ডাকছে বাংলা একাডেমি বইমেলা, ভাষা-জাগরণ
মধু হই হই মধু বই বই… বিনোদন।
কি বই খাওয়াইলা ও মেলার মহাজন।

ডাকছে বহেড়াতলা, লিটলম্যাগ চত্বর…।
স্মৃতিতে কঠিন সেই সত্যাগ্রহ সাময়িকীদিন।
যাপিত লিটলম্যাগ গেম, হয়তো প্রথম প্রেম,
প্রথম তারুণ্যঘেঁষা ফুটন্ত ফসল-
সাহিত্যচেষ্টার করতল, মাঠচষা মফস্বল।
ভুলিনি হস্তকম্পোজ,
অক্ষরের পরে অক্ষরবসানো খেলা, গ্যালী,
তরুণের পাশে প্রথম তরুণী, প্রেম-
তার চেয়েও অধিক ছিলো-
     যখন লিটলম্যাগ সঁপিলেম!

ফিরছি কষ্টপাড়া কুতুপালং থেকে।
শরীরে রোহিঙ্গা শরণার্থী গন্ধ। কাহিনি দস্তুর, উদ্বাস্তুর।
ফিরছি সুগন্ধি নিতে সদ্যপ্রকাশ সাময়িকীর।
জানিনা কাগজ আর কতোদিন! পর্যুদস্ত প্যাপিরাস!
তসবিহ টেপার ঢঙ্গে মানুষ টিপছে সঙ্গফোন। ল্যাপটপ-যুগ,
কোলযন্ত্র : শিশু আর নারীকে কাঁদিয়ে নিচ্ছে কোলের দখল।

যন্ত্রযুগের ধকল এড়াতে ঢেঁকিছাটা কবিতার সৃষ্টিকলা।
দামামাবিহীন নমশূদ্র সাময়িকী, ধাবন লিটলম্যাগ অন্তর্জালযুগ
হয়তো পোর্টাল, ‘লোক-কৃত্তিবাস-রক্তবীজ’ নাকি ‘চিন্তাসূত্র’।
আগামীর সাহিত্যসুপুত্রবৃন্দ, জেগে ওঠো বয়ঃসন্ধিকাল,
জেগে থেকো মাতাল ম্যাগেরা সমকাল, মহাকাল।
ফিরছি তোমার কাছে, সমর্পণ আজ ও আগামীকাল।

#  ছন্দ : অক্ষরবৃত্ত  #

সালেম সুলেরী
সালেম সুলেরী

Author: সালেম সুলেরি

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Related posts

মতামত দিন Leave a comment