গাধা আমি কোথায় পাব

মটকু ভাই : দেখ, তোমার ছেলে কী ভাবে কাঁদছে। সকাল থেকে বায়না ধরেছে গাধার পিঠে চড়ে ঘুরবে। গাধা আমি কোথায় পাব?

স্ত্রী : গাধার দরকার নেই। তোমার পিঠে চড়িয়ে ঘোরাও, আর গাধার মতো ডাকো।দেখবে কান্না থেমে গেছে।

মটকু ভাই প্রোগ্রামার হিসেবে কাজ করে। একদিন সে তার স্ত্রীকে বলল, তোমার কাছে আমার কৃতজ্ঞতার অন্ত নেই। আর তাই স্থির করেছি, আমার সদ্য তৈরি ভাইরাসটির নাম দেব তোমার নামে ডালিয়া।

 

মটকু ভাই : সিনেমার শেষে প্রধান চরিত্র মারা গেলে সেটিকে শুভ সমাপ্তি বলা সম্ভব?

স্ত্রী : সম্ভব, যদি প্রধান চরিত্র হয় শাশুড়ি।

 

মটকু ভাই : ওগো শুনছ, সর্বনাশ হয়ে গেল।

স্ত্রী : কী হয়েছে?

মটকু ভাই : আজ সেলারী নিয়ে অফিস থেকে বাড়ি আসার পথে দুই ছোকরা পিস্তল দেখিয়ে বলল, হয় টাকা দাও না হলে জান দাও।

স্ত্রী : আর তুমিও বোকার মতো টাকাটাই দিয়ে এলে!

 

 

মটকু ভাই বাজারে যাওয়ার পথে ব্যাগ হারিয়ে হাঁড়িমুখ হয়ে ঘরে ফিরল। হাতে বাজারের ব্যাগ না দেখে তার বদমেজাজি বউ খেঁকিয়ে উঠল, হাত খালি কেন? বাজার কোথায় শুনি! মটকু ভাই ঘাড় চুলকে বলল, ইয়ে মানে, বাজারে আজ পা ফেলার উপায় নেই। তার ওপর ব্যাগটাও হারিয়ে ফেলেছি!

তা শুনে বউয়ের মেজাজের পারদ আকাশমুখী, তা বেশ, টাকাগুলো আছে তো, নাকি তাও ফেলে এসেছ?

মটকু ভাই এ-গাল ও-গাল হাসি হেসে বলল, না, না, না ও নিয়ে চিন্তা কোরো না! টাকাগুলো ওই ব্যাগেই আছে। আর ব্যাগের মুখটাও কষে বেঁধেছিলাম আজ।

Author: রক্তবীজ ডেস্ক

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Related posts

মতামত দিন Leave a comment