ডায়াবিটিসে আম কতটা নিরাপদ

ডায়াবিটিসে আম কতটা নিরাপদ কঙ্কা রহমান

গরমের সুমিষ্ট ফল আম। কিন্তু অনেকেই সুগারের ভয়ে আম খাওয়া থেকে দূরে থাকেন। বিশেষ করে ডায়বেটিসে আক্রান্তরা ভাবেন আম তাদের কোন বিপদে ফেলবে নাতো!

ডি কে পাবলিশিংয়ের হিলিং ফুডস বই অনুযায়ী, আমে থাকে এনজাইম; যা প্রোটিনের ভাঙন ও হজমে ভূমিকা রাখে। এছাড়া এতে আছে ফাইবার যা খাদ্য হজমে সহায়তা করে। পাশাপাশি খাদ্য তালিকায় ফাইবারের কিছু দীর্ঘমেয়াদী সুবিধা রয়েছে। এর মধ্যে অন্যতম হলো কোলন ক্যান্সার ও হৃদরোগের ঝুঁকি কমায় ফাইবার।

ফেডারেশন অব আমেরিকান সোসাইটিস ফর এক্সপেরিমেন্টাল বায়োলজি ফেডারেশন (এফএএসবি) পরিচালিত এক গবেষণায় দেখা গেছে, প্রতিদিন আম খেলে রক্তে শর্করার মাত্রা কমে এবং রক্তে সুগার নিয়ন্ত্রণে থাকে।

অন্যদিকে ওকলাহোমা বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিচালিত আরেটি গবেষণায় দেখা যায়, আম খেলে ইনসুলিনের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকে।

আমেরিকান ডায়াবেটিস অ্যাসোসিয়েশন ডায়াবেটিস রোগীর খাদ্য তালিকায় আম রাখার সুপারিশ করে। তাদের মতে, খাবারের তালিকায় কার্বোহাইড্রেট যেমন খাদ্যশস্য বা দুগ্ধজাত খাবারের সমার্থক হিসেবে এসবের পরিবর্তে ফল খাওয়া যেতে পারে। যদিও বেশিরভাগ বিশেষজ্ঞই একমত যে, আম বেশ পুষ্টিকর; তবে তা ডায়াবেটিকের জন্য ভাল কিনা সে বিষয়টি এখনও প্রশ্নসাপেক্ষ।

নয়াদিল্লির ওয়েট লস ক্লিনিকের বিশেষজ্ঞ ডায়েটিটিয়ান লোকেন্দ্রা তোমার বলেন, ‘ডায়াবেটিক রোগীদের আম এড়িয়ে চলা উচিত।’ তার মতে, ডায়াবেটিক রোগীদের কম কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ খাবারের ওপর নজর দেয়া উচিত। কারণ প্রতি ৫ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট শরীরে ১০০ ইউনিট পরিমান সুগার বাড়িয়ে দেয়। আম উচ্চ কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ ফল। যার অর্থ, ১০০ গ্রাম আম ২০ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট উৎপাদন করে। যদি রক্তে সুগারের পরিমান বেশি হয়, তবে আম এড়িয়ে চলা উচিৎ।’

তিনি বলেন, ‘একজন ডায়াবেটিক রোগীর জন্য দৈনিক কার্বোহাইড্রেটের পরিমাণ ১০০ গ্রাম হওয়া উচিত। যদি একটি আম খাদ্যে যোগ করতে চান, তাহলে গম বা চালের মত কার্বোহাইড্রেটেটের অন্যান্য উৎস এড়িয়ে চলুন। এছাড়া আম শুধু দিনে খাওয়া উচিত।’

ভারতীয় ডায়োটেকটিক অ্যাসোসিয়েশনের (আইডিএ) অধ্যাপক নীলঞ্জনা সিং বলেন, ‘অবশ্যই আম অত্যন্ত পুষ্টিকর ফল। তবে ডায়াবেটিক আক্রান্তদের জন্য আম কতটা নিরাপদ তা এখনও প্রশ্নসাপেক্ষ।

সূত্র: এনডিটিভি

Author: কঙ্কা রহমান

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Related posts