তোমাকে দিলাম

তোমাকে দিলাম

তোমাকে দিলাম
আমার মৌনতা তোমাকে দিলাম,

বাগানের ফুল,  প্রজাপতি
সবুজ বৃক্ষের ছায়া- দিলাম দুপুর,
আমার সমস্ত বর্ণ বিন্যাসের সজীবতা
তোমাকে দিলাম,- অনন্ত নীল
আকাশ আর ভাসমান মেঘ
ধানক্ষেত,ভোরের শহর দিলাম
উদাসী রাতের গান,
শ্রাবণের অঝোর বর্ষণ,আর্দ্র কদমের ছায়া,
দিলাম পাখির প্রণয়-সব আদিম সম্ভার,
করতলে দিলাম ঋতুর অভয়।
আমাকে তোমার সবুজ শব্দগুলো দিও
আর দিও কালের কপোলে রেখে দেয়া
দু’ফোটা চোখের জল…

অতল শূন্য

স্বপ্নে আমি একটা দুরন্ত অশ্বকে দেখি প্রায়ই

কেশর দুলিয়ে ছুটতে থাকে – বন, পাহাড়, নদী,
দিগন্ত অতিক্রম করে সন্ধ্যার আরক্ত বাতাসে
মিলিয়ে যায়।
সমস্ত বনভূমি সচল হয়ে ওঠে তখন
সুরের মূর্ছনা জাগে সবুজ পাতায়,
পাখির কলরব, আনন্দ আবেগে জেগে ওঠে সব।
তখন নিজেকে শীতল চাঁদের নীচে
ছায়াহীন অতল শূন্য মনে হয়,- কি ভীষণ সময় !
অনিঃশেষ শূন্যতা ঘিরে ফেলে চারদিক,
আমি চিৎকার করতে চাই….
গুহা যুগের নিস্তব্ধতা এসে আমার
কন্ঠকে রুদ্ধ করে দেয়!

মালেকা ফেরদৌস
মালেকা ফেরদৌস

Author: মালেকা ফেরদৌস

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Related posts