দেখছ না, মাছি মারছি

মটকু  ভাই আর তার স্ত্রী আদালতে গেছেন তালাক নিতে। কিন্তু মটকু  ভাইয়ের স্ত্রী তালাক নিতে বা দিতে নারাজ। আদালতে হঠাৎ করেই বেশ কান্নাকাটি শুরু করলেন তিনি।

বিচারক ভদ্রমহিলাকে জিজ্ঞেস করলেন, আপনি কাঁদছেন কেন? তালাক হলে তো আপনার স্বামী আপনাকে খোরপোষ দেবেন। তাতে তো ভালোই চলে যাওয়ার কথা?

স্ত্রী  বললেন, আমাদের ১৫ বছর বিয়ের বয়সে ০২ জন সন্তান হয়েছে। আর তাদের খরচাপাতি ২০ হাজার টাকার উপরে।

বিচারক বললেন, তাতে সমস্যাটা কী?

ভদ্রমহিলা বললেন, কিন্তু বিয়ের সময় আমি প্রতিজ্ঞা করেছিলাম, তালাক হলে সব দায়ভার আমাকেই বহন করতে হবে।

 

বসে বসে পতি প্রবর মটকু  ভাইয়ের মাছি মারা দেখে তরি স্ত্রী তাকে জিজ্ঞেস করলেন,

স্ত্রী : কী করছ তুমি?

মটকু ভাই : দেখছ না, মাছি মারছি।

স্ত্রী : তা কয়টা হলো?

মটকু  ভাই : তিনটা পুরুষ আর দুইটা স্ত্রী মাছি মারলাম।

স্ত্রী : কী করে পুরুষ-স্ত্রী বুঝলে?

মটকু ভাই : কারণ দুইটা মাছি ড্রেসিং টেবিলের আয়নায় বসেছিল, আর তিনটা মাছি দূর থেকে চুরি করে ওদের সাজগোজ দেখছিল।

 

মটকু ভাই আর তার স্ত্রীর মধ্যে কথোপকথন

মটকু ভাই: পাশের ভাড়াটিয়ার কাছ থেকে একটু লবণ নিয়ে এসো তো?

স্ত্রী : ওরা আমাদের লবণ দেবে না।

মটকু  ভাই : ওরা তো খুব কঞ্জুস!

স্ত্রী : ওদের কিপ্টেমির কথা আর বোলো না।

মটকু  ভাই : তাহলে আর কী করা; আলমারি থেকেই লবণ বের করে আম ভর্তাটা করে নিয়ে এসো।

Author: রক্তবীজ ডেস্ক

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Related posts

মতামত দিন Leave a comment