ফ্লাইং ফিসঃ আকাশে ওড়া মাছ

এরা পাখির মত উড়তে না পারলেও পানির উপর বেশ লাফিয়ে লাফিয়ে চলে। শত্রুর হাত থেকে মুক্তি পাবার জন্য তারা এই পদ্ধতি অবলম্বন করে। ধরুন, সাগরের নীল জলরাশির উপর ঝাঁকে ঝাঁকে মাছ এদিক ওদিক উড়ে বেড়াচ্ছে। শিকারের উদ্দেশ্যে টোপ ফেলতেই হিংস্র গতিতে ছুটে আসছে আপনার দিকে।
নাহ, এটা কোন ভৌতিক ছবির কাহিনী না। বাস্তবেও এমন কিছু মাছ আছে আমাদের এই পৃথিবীতে যাদের উডন্ত মাছ বা ফ্লাইং ফিস বলা হয?। এরা পাখির মত উড়তে না পারলেও পানির উপর বেশ লাফিয়ে লাফিয়ে চলে। শত্রুর হাত থেকে মুক্তি পাবার জন্য তারা এই পদ্ধতি অবলম্বন করে।
উষ্ণ সমুদ্রীয় অঞ্চলে এই ধরনের মাছ লক্ষ্য করা যায়। তাদের স্ট্রিমলাইনড টর্পেডো আকৃতির পৃষ্ঠ এবং ডানার মত জোড়া পাখনা তাদের পানির উপর লাফিয়ে চলতে সহায়তা করে।
ওড়ার অদ্ভুত ক্ষমতা থাকার কারনে এই মাছকে শিকারে পরিনত করতে বড় বড় মাছদের বেশ বেগ পেতে হয়।
উড়ন্ত এই মাছের মূল খাবার হচ্ছে প্ল্যাঙ্কটন। এখন পর্যন্ত ৪০ প্রজাতির উড়ন্ত মাছ সনাক্ত করা হয়েছে।
এদের মধ্যে অনেকে আবার ‘ভড়ঁৎ-রিহমবফ ভষুরহম ভরংয’ নামেও পরিচিত। ফ্লাইং ফিস ৪ ফুট থেকে ৬৫৫ ফুট পর্যন্ত উড়তে পারে এবং তাদের গতি ঘণ্টায় প্রায় ৬০ কিমি পর্যন্ত হয়।
এদের মধ্যে অনেকে ১৩১২ ফুট পর্যন্ত উপরে উঠতে পারে। মাছটির উড? বেড়ানোর পদ্ধতিটাও বেশ চমৎকার। প্রথমে মাছটি সাগরের পৃষ্ঠে লাফ দিয়ে ওঠে।
তারপর মাত্র এক সেকেন্ডে ৭০ বার সাগরের পৃষ্ঠে লেজ নাড়িয়ে অগ্রসর হতে থাকে,তারপর পাখির মত ডানা মেলে দেয?।
এই ডানা তাদের উচ্চতা লাভে সাহায্য করে। এদের ওড়ার মূল রহস্য হচ্ছে, এই মাছের বক্ষ-পাখনা থাকে অনেক বড? যা ডানা বা পাখার মত কাজ করে আর সাহায্য করে পানির উপরে উড়তে বা  বা লাফিয়ে চলতে। এদের লেজ বা পুচ্ছও অনেক বড? ও শক্ত যা দিয়ে এরা পানিতে আঘাত করে উড়তে গতিশক্তি লাভ করে।

Author: রক্তবীজ ডেস্ক

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Related posts