ভালো থেকো প্রিয় বাংলাদেশ

ভালো থেকো প্রিয় বাংলাদেশ

”সবকটা জানালা খুলে দাওনা ”আমি গাইবো গাইবো বিজয়েরই গান। ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তে, আর দুই লক্ষ মা বোনের সম্ভ্রম হারিয়ে অর্জিত হে স্বাধীনতা। তুমি আসবে বলে কত প্রতীক্ষা কত না বলা গল্প জমিয়ে রাখা । একদিন দেশ স্বাধীন হবে তখন সবাইকে বলবো আমার যুদ্ধজয়ের গল্প। আজ সেই স্বাধীনদেশে আমার গল্প কেউ শুনতে আসে না। যারা পাকিস্তানীদের দোসর আজ তারাই মঞ্চে দাঁড়িয়ে দু হাত নাড়িয়ে কত মিথ্যাচার করছে আর সবাই, তাই যেন বিশ্বাস করছে। কেউ আমার কাছে জানতে চায় না, আমার পরিচয় আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা। আমার অর্জন এই স্বাধীন দেশ । বিশ্বাস করো, আমি কোন সম্পদ লুট করিনি, আমি আমার সম্পদ, আমার পরিবার, সবকিছু হারিয়ে আজ নিঃস্ব অসহায় এক বীর মুক্তিযোদ্ধা । প্রত্যেক বছর যখন ১৬ ডিসেম্বর আসে আমিও আশায় বুক বাঁধি । হায় আমার ভাগ্য আমাকে আজ কোথায় নিয়ে যাবে জানি না। আজ পর্যন্ত আমি মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় নিজের নাম লেখাতে পারিনি। আমার শরীরের জোর আস্তে আস্তে কমে আসছে। এই বছরও যদি আমি মুক্তিযোদ্ধার  তালিকায় নাম লেখাতে না পারি তাহলে আর হয়ত সম্ভব হবে না । আমি হয়ত আমার চলার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলবো। তোমরা কি শুনতে পাচ্ছ আমার আর্তনাদ? আমি মুক্তিযোদ্ধা ভাতা চাই না, আমি কোন সাহায্য চাই না । দয়া করে আমাকে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দাও। আমার বিজয়ের গল্প সবাইকে জানতে দাও, আমার সব অর্জন তো তোমাদেরই জন্য। একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে আমাকে কি তোমরা কোনদিনই মনে রাখবে না । কেন মুছে ফেলতে চাও আমার এ অর্জন। কিসের ভয় তোমাদের। তোমরা যুদ্ধ না করেও আজ স্বাধীন দেশের ক্ষমতার আসনে বসে আছ? তোমরা কি আমার বাংলা মায়ের সেই সম্ভ্রমের মুল্যায়ন করতে জানবে। তোমরা কি পারবে দিনের পর দিন না খেয়ে যুদ্ধ চালিয়ে যেতে। নাকি তোমরা অসহায়ের মুখের খাবার কেড়ে নিয়ে তাদেরকে বিতাড়িত করতে চাও। শৃংখলার বুলি আউড়িয়ে তাদেরকে বেমানান ভাবতে তোমাদের বুক এতটুকুও কাঁপে না। তোমরা তো বাবা মায়ের হাত ধরে পৃথিবীতে আসোনি। তোমরা এসেছ আকাশ ফুঁড়ে। আমার ভাবতে ও লজ্জা হয়, আজ সেই ১৬ই ডিসেম্বর আমার জায়গায় একজন রাজাকার বসে আছে। আহারে , আমার কেন যেন মনে হয় যুদ্ধে ঠিকই জয়লাভ করেছি, কিন্তু দেশকে শত্রুমুক্ত করতে পেরেছি কি? না পারি নাই। আবার যদি যুদ্ধ হত আবার যদি অস্ত্র ফিরে পেতাম তাহলে আগে ধ্বংস করে দিতাম দেশবিরোধী এই শত্রুদের।  তার পরে হানাদার বাহিনীদের শেষ করতাম। তোমরা আমাকে ভুল বুঝো না। আমার মাথা খারাপ হয়ে গেছে, আমি পাগল হয়ে যাচ্ছি। এই সোনার বাংলায় যখন সীমাহিন দুনীর্তি আর অসম বন্টন আর মুক্তিযোদ্ধাদেরকে আবহেলা অবজ্ঞা করা হয়, তখন আমি কি আর করতে পারি । আমার হাতে সেই অস্ত্র আর শক্তি কোনটাই নেই। আমার অস্ত্রতো আমি শেখ মুজিবের কাছে জমা দিয়েছি । আমি শপথ করেছি আর তোমাদের বকা দেব না। আর তোমাদের অভিশাপ দেব না। ভাল থেকো প্রিয় ভাইসব, ভাল থেকো আমার সোনার বাংলা,  ভাল থেকো প্রিয় বাংলাদেশ। বিদায়।

ফিরোজ শ্রাবন​
ফিরোজ শ্রাবন

 

 

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Related posts

মতামত দিন Leave a comment