আমাদের জাতীয় সঙ্গীত এর পুরোটা

আমাদের জাতীয় সঙ্গীত ‘আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালবাসি’ এর পুরোটা। রচনা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। ”আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি । চিরদিন তোমার আকাশ, তোমার বাতাস, আমার প্রাণে বাজায় বাঁশি ॥ ও মা, ফাগুনে তোর আমের বনে ঘ্রাণে পাগল করে, মরি হায়, হায় রে— ও মা, অঘ্রানে তোর ভরা ক্ষেতে আমি কী দেখেছি মধুর হাসি ॥ কী শোভা, কী ছায়া গো, কী স্নেহ, কী মায়া গো— কী আঁচল বিছায়েছ বটের মূলে, নদীর কূলে কূলে । মা, তোর মুখের বাণী আমার কানে লাগে সুধার মতো, মরি হায়, হায় রে— মা, তোর…

Read More

মাওলানা জালাল উদ্দীন রুমির কবিতার ভাবানুবাদ / প্রেম-প্রজ্জ্বলিত আমার অন্তর…

প্রেম-প্রজ্জ্বলিত আমার অন্তর…. ইংরেজি ভাষান্তর থেকে ভাবানুবাদ মাহবুবুল হক আমার অন্তর সারাক্ষণ শুধু প্রেমের আগুনে প্রজ্জ্বলিত হচ্ছে এবং এই প্রজ্জ্বলন সহজেই সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে। আমার হৃদয় সারাক্ষণ কোন উদ্বেলিত আবেগে স্পন্দিত হচ্ছে যেমন সমুদ্রের বিপুল তরঙ্গরাশি আছড়ে পরে একে অন্যের উপর। আমার সকল বন্ধুদের এখন আমার কাছে ‘আগুন্তুক’ বলে মনে হয়, মনে হয়, আমি যেন চারিদিক থেকে কেবল ‘শত্রু পরিবেষ্টিত’ হয়ে আছি। তবুও আমি নিজেকে এখন মুক্ত বাতাসের মতই স্বাধীন মনে করছি। নিন্দুকের নিন্দাবাক্য এখন আমাকে আর আগের মত আঘাত করে না, যেখানেই যাইনা কেন মনে হয় আমি যেন…

Read More

ঢাকাইয়া কবিতা/ দিলে দিলে মসকরা

দিলে দিলে মসকরা / শাকিলা তুবা দিল আমার ক্যারাব্যারা খায়া পইড়া আছে জল্লার পাড়ে; হালার পুতেগো লেইগ্যা সাস ভি লিবার পারি না হাতের মেন্ধি দেইখা ভি কয়, তুমি বহুত খুপসুরত আছ, তোমারেই চাই। আমি কই, উষ্টা খা আপনা কপালে ঐ বেল্লিক তোগো মা-বইন নাইক্কা? আমার দিল লিয়া খেলবি আবর তো ছাইড়াও যাবিগা হুমন্দির পোলা, কুন আজাবে খৎনা দিছিল তরে? সব ছেড়ির বুকেই ফাল পাড়বার চাস! এলা আয়া খাড়ায়া থাকি চান্দের লাহান, একলা আমার বুকের ভিৎরে চুঁয়া লৌড়ায় আয় হায় মা, বুকের কাঁপন সিজিল অহে না কারে য্যান চাইছিলাম, কেউগা জানি…

Read More

রূপো রং মাখা

রূপো রং মাখা তাহমিনা কোরাইশী শুভ্র কাশফুল নদী আকাশ জোছনা প্লাবন রূপো রং ছাওয়া এই ক্ষণ এই রাত নিস্তব্ধ নির্জন নদীজল রাশিরাশি, রূপালিচাঁদ করে মাতামাতি ডিঙি নায়ে আমরা দু’জন আদিম লীলাসাথী। ঐ আকাশ সিংহাসন ঐখানে এক বিলাসী রাজা ব্যস্ত রৌপ্য মুদ্রা বিতরণে জল তরঙ্গ করে চকচক হাজার উর্বশীর নৃত্যরত দেহ বল্লরী। রূপো রং ছাওয়া চারিধার, হংসমিথুনওরা চোখের উজানে স্মৃতির স্রোতস্বিনী আকুলি বিকুলি করে কলকল বয়ে চলা নিরবধি রূপো রং মাখা সর্বাঙ্গে আনন্দমত্ত অরুন্ধতী। দিবসের ক্লান্তি পরাভূত রাতের বাঁশিতে মত্তমগনওরা পাশাপাশি কাশফুল হাসিতে।

Read More