কাঁচকলার কাবাব

চিংড়ী বিরিয়ানি

কাঁচকলার কাবাব উপকরণ: কাঁচকলা ১টি খেসারির ডাল ১/৪ কাপ পেঁয়াজ কুচি ২ টি কাঁচামরিচ কুচি ৪ টি ধনেপাতা কুচি পরিমাণ মতো কাবাব মশলা ১ চা চামচ লবণ পরিমাণমতো ময়দা ১ চা চামচ ভাজার জন্য তেল ডিমের সাদা অংশ ১টি বেশি বানাতে চাইলে সব কিছুর পরিমাণ বাড়িয়ে দিলেই হবে। প্রণালীঃ প্রথমে কাঁচকলা ও খেসারির ডাল সেদ্ধ করে নিতে হবে । সেদ্ধ খেসারির ডাল ও কলার খোসা ছাড়িয়ে ভালমতোমাখিয়ে নিন। মাখানো ডাল ও কলার সাথে কাবাব মশলা, লবণ,  পেঁয়াজ কুচি, মরিচ কুচি, ধনেপাতা কুচি, ময়দা ও ডিমের সাদা অংশ ভালভাবে মেখে কাবাবের…

Read More

ঘরভাঙা ঘর

ঘর ভাঙা ঘর

ঘরে ফিরতে কবিরুলের পা জড়িয়ে আসছিলো। কবিরুল চাকরি করে একটা বেসরকারি ব্যাংকে। মতিঝিলে অফিস। বেতন ভালো। বেতন ভালো বলে এখনো সে নিজের জন্য ভালো একটা বাসা ভাড়া নেয়নি। দেশে বাড়িঘরের চেহারা আগে পাল্টাতে হবে। বাড়ির ছেলে পাস করে চাকরি পাওয়ার সাথে সাথে গ্রামের মানুষ আগে তাদের ঘরখানার জৌলুস দেখতে চায়। এটা বাদ রেখে আর কোনো কিছুর উন্নতি তাদের চোখে ধরে না। আর সেইসব মানুষের চোখ ছানাবড়া করে দিতে মা-বাবাও ছেলের প্রাণ ওষ্ঠাগত করে তোলে। সব ধকলের চাপই তো শেকড়ে পৌঁছে। অর্থাৎ যে পাশ করলো মাত্র। চাকরি তার হোক না-ই হোক।…

Read More

শুধুই তুমি

শুধুই তুমি

ভোরের সূর্যোদয়ে স্নিগ্ধ আলো সুললিত কণ্ঠ হয়ে হৃদয়টা নেড়ে দিলে কতদিন পর? রাতটুকু গভীর ছিল নেটে পাওয়ার ব্যর্থ প্রত্যাশা হতাশা কেটে গেলো দিনান্তে সূর্যরশ্মি হলে প্রত্যাশিত তুমি। তোমার চোখের ঝিলিকে সেদিন কুয়াশাচ্ছন্ন ছিলাম তবু প্রেম উল্লাস না কবিতা জানা ছিলনা আজ জানি শুধুই প্রেয়সী। সকালটা থেমে যাক আজ থেকে খুব কাছে থেকো তুমি আমার কবিতার ছন্দ অলংকার উপমা আর উৎপ্রেক্ষা বাণী।

Read More

হে কবিতাবালা

একজন কবির পাশে আরেকজন কবি একজন শিল্পীর সঙ্গে আরেকজন শিল্পী একটা স্বপ্নে সঙ্গে আরেকটা স্বপ্ন একটা মনের সঙ্গে আরেকটা মন ছাদহীন ঘর তবু জেগে থাকে আশা জাগে প্রান্তর, জাগে ভালোবাসা। রঙিন প্রজাপতি আর বর্ণিল জোনাকি যখন মেলে ধরে ঝলমলে ডানা- যখন শাদা ভেড়ার মতো মেঘ ছোটাছুটি করে আকাশে আকাশে তখন বিন্দু আর কণার মধ্যে কোনো ব্যবধান থাকে না। দীর্ঘায়িত হয় চুম্বনের আয়ুষ্কাল! রাঙাও আকাশ তোমার, সাজাও স্বপ্নের ডালা আমি আছি পদ্যকুমার, হে কবিতাবালা!  

Read More

গ্রেটওয়ালের দেশে- ১৫তম পর্ব

গ্রেটওয়ালের দেশে- ৪র্থ পর্ব

বারো ডিসেম্বর দুহাজার ষোল। আজ পাওয়ার প্লান্টে পৌঁছুতে সকাল দশটা দশ বেজে গেল। রাস্তায় ট্রাফিক জ্যাম ছিল।আজ সকালে টীম এ, বি ও সি এর ক্লাস ছিল।এর মধ্যে অর্ধেকের প্লান্ট ভিজিট, বাকী অর্ধেকের সিমুলেশন ক্লাস। পাওয়ার প্লান্ট কিভাবে চালানো হয়, তারই গ্রাফিক্যাল প্রেজেন্টেশনই হলো সিমুলেশন। ক্লাস শেষে হোটেলে এসে সরাসরি তৃতীয় তলায় ডাইনিং রুমে। লাঞ্চ সেরে নিজ রুমে একটু বিশ্রাম নেয়া হলো। তারপরই আমরা বেরিয়ে পড়লাম সাবওয়ে ধরে ওয়াং ফু জিং স্ট্রীটের উদ্দেশ্যে। হোটলের পাশেই বেইজিং ওয়েস্ট রেলওয়ে স্টেশন। এখান থেকে  নয় নং লাইন ধরে মিলিটারি মিউজিয়াম স্টেশন। তারপর লাইন ট্রান্সফার…

Read More

মিতুদি সিরিজ-৮

মিতুদি সিরিজ-৪

জাতিসংঘের ওয়েলফেয়ার সেক্রেটারী এমিকাকে আমেরিকা আর বিবৃতিতে বৃষ্টি ভেবে হালিমা যে আত্মবিশ্বাসের সাথে আমাদের এই সংবাদ পাঠ করতে দিলো তাতে ওকে কিভাবে যে এখন বোঝাই এমিকাই বা কে আর বিবৃতি মানেই বা কি?  মিতুদি খুব মজা পেলো হালিমার সংবাদ পাঠের এই নমুনায় হালিমাকে বললো  তুই তো  দেখি বেশ ভালোই বুঝেছিস? রোজ পড়িস খবরের কাগজ? – হ খালাম্মা ইচ্ছা হইলে মাঝে মধ্যে পড়ি। এর মধ্যে আমার স্বামী মিতুদিকে দেখে বলে উঠলো – আরে বউদি?  কখন এলেন? কেমন আছেন? – ভালো আছি দাদা। আপনি দেখি  ধান নিয়ে এসেছেন? – হ্যাঁ বউদি। কালিজিরা…

Read More

আমিনুল ইসলামের প্রেমের কবিতা: বহুমাত্রিক এবং অনন্য

আমিনুল ইসলামের প্রেমের কবিতা

মানব মন একটি আস্ত ভূগোল। এ যেন সীমার মাঝে অসীম প্রবাহ। প্রকৃতির মতোই এখানে জোয়ার আসে, দুকূল ছাপিয়ে আসে বন্যা, সে তোড়ে নিজে ভেসে চলে, ভাসিয়েও যায়। এভাবেই চলে স্রোতের টানে লক্ষ্য অভিমুখে ছুটে চলা, কখনও পাড়ে লেগে, কখনওবা পাড় ভেঙে। আর আবেগের উৎসারিত এ ধারা মন্ত্রমুগ্ধের মতো আকর্ষণ করে প্রতিনিয়ত, চুম্বকের ন্যায় টেনে  রাখে অপর কোন প্রান্তে। এ অনুভবের নামই প্রেম। বিন্দু হতে বৃত্ত অভিমুখে এ অনুভূতির গন্তব্য। প্রকৃতির প্রবাহের সাথে মিলে যাওয়া এই গতিময় প্রেমও জীবন্ত হয়ে উঠতে পারে, সজীব আবহে ভরে তুলতে পারে পাঠকের মন, প্রেমের কবি…

Read More