গ্রেটওয়ালের দেশে -১৮তম পর্ব

গ্রেটওয়ালের দেশে

যাহোক, আজ দুপুরে ফু চেং লু সড়কে অবস্থিত একটি রেস্তোঁরায় মধ্যাহ্নভোজ হলো। রেস্তোঁরাটি একটি মুসলিম রেস্তোঁরা, নাম Xi Bei Zha ma-san-Ting. রেস্তোঁরার মালকিন একজন মুসলিম লেডি। নাম –ঝু মা। তার সাথে তার বোনও দোকান চালায়। দুজনেই মাথায় স্কার্ফ পরা। তবে এ স্কার্ফ শুধু মাথার চুলই ঢেকে রাখে, ঘাড়, গলদেশ বা শরীরের কোনো অংশ নয়। মালকিন মহিলা বেশ সুন্দরী। সাধারণ চৈনিক চেহারা নয়, অনেকটা ককেশীয় মুখাবয়ব। খাবার ভাল ছিল। ফোন নং-কে চীনা ভাষায় বলে দিয়াম হুয়া। রেস্তোঁরার বিজনেস কার্ড চাইলে সে চীনা ভাষায় দিয়াম হুয়া লিখে দিল ০১০ ৬৫৪৩২০০৯। প্রসঙ্গত একটা…

Read More

মিতুদি সিরিজ- ১১

মিতুদি সিরিজ-৪

চাল ঝাড়া শেষ হলে হালিমা বললো, আমরা তো আর খুদ খাবো না। কাজেই খুদগুলি তাকে দিয়ে দিতে। সে অনেকদিন নাকি বউখুদি রান্না করে খায় নি। মিতুদি শুনে বললো, বউ খুদি? তা তুই একাই খাবি নাকি ? আমাদের সবার জন্যে এখানেই রান্না করো। আমরাও খাবো।ঢাকা শহরে আমরাই বা খুদ কোথায় পাই যে বউখুদি রান্না করবো? হালিমার মুখটা একটু অপ্রসন্ন হয়ে উঠলো। সে আমার দিকে তাকিয়ে রইলো। আমি বললাম ,হ্যাঁ রান্না করো , খেয়ে দেখি তোমার হাতের বউ খুদি?   হালিমা কি আর করে! রান্নাঘরে গিয়ে বাসন পত্রের ঝনঝনানি সংগীতের সাথে সাথে…

Read More

আমাদের সুবোধ কি সত্যি পালিয়ে যাচ্ছে?

সুবোধ তুই পালিয়ে যা

“সুবোধ তুই পালিয়ে যা” শিরোনামে নিচের প্রতীকী  দেয়াল চিত্রগুলো কিছুদিন বেশ আলোচনায় ছিলো। এখনো মাঝেমধ্যে অন লাইন ও প্রিন্ট মিডিয়ায় এগুলো নিয়ে লেখালেখি হয়। রাজধানীর আগারগাঁ ও মহাখালিসহ কয়েকটি জায়গায় রাস্তার পাশের দেয়ালে এই গ্রাফিতিগুলো আঁকা ছিলো। আগারগাঁর সামরিক যাদুঘরের দেয়ালে আঁকা চিত্রগুলো মিরপুর থেকে বাসে আসা-যাওয়ার সময় আমার মতো অনেকেরই চোখে পড়তো। চিত্রগুলো রহস্যপূর্ণ। দেখে বোঝা যায় আনাড়ি হাতের নয়, বরং দক্ষ ও মেধাবী শিল্পীর কাজ। স্বদেশে দুর্বৃত্তের কাছে সহজ-সরল ও সুবুদ্ধিসম্পন্ন ভালো মানুষের পরাজয় এ চিত্রগুলোতে প্রতীকিভাবে বোঝানো হয়েছে, বুঝিয়ে ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। তবে প্রতিবাদের ভঙ্গিটা চমৎকার।…

Read More