বাংলাদেশের নারী

আই অ্যাম ডায়িং

নারী আন্দোলনের অগ্রদূত বেগম রোকেয়া নারী জাগরণের আহ্বান জানিয়ে বলেছিলেন,‘ তোমাদের কন্যাগুলিকে শিক্ষা দিয়া ছাড়িয়া দাও , নিজেরাই নিজেদের অন্নের সংস্থান করুক।’ তার এই আহ্বানে নারীর অধিকার অর্জনের পন্থা সম্পর্কে সুস্পষ্ট নির্দেশনা রয়েছে । উনবিংশ শতাব্দীর শেষভাগে এ দেশে নারী জাগরণে সাড়া পড়েছিল শিক্ষা গ্রহণকে কেন্দ্র করে। তাছাড়া বৃটিশ বিরোধী আন্দোলনে অংশগ্রহণ করে নারী তার অধিকার আদায়ে সচেতন হয়ে ওঠে। বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন, উনসত্তরের গণঅভ্যুত্থান ও স্বাধিকার আন্দোলনে নারীর অংশগ্রহণ ছিল গুরুত্বপূর্ণ। এদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে  নারীর অসামান্য অবদান তাদেরকে আত্মপ্রত্যয়ী করে তোলে। নারীরা সোচ্চার হয়ে ওঠে অধিকার আদায়ে । আশার…

Read More

বঙ্গবন্ধুর ভাষণে

বঙ্গবন্ধুর ভাষণে

শব্দ আছে নানান রকম শব্দ আছে গুলির নদীর যেমন শব্দ আছে শব্দ আছে তুলির। কাজে কর্মের শব্দ আছে শব্দ আছে হাসির ঝরা পাতার শব্দ আছে শব্দ আছে বাঁশির। শব্দ আছে আন্দোলনের শব্দ আছে দাবির শব্দ আছে ধর্মঘটে ভাঙতে তালা-চাবি।। শব্দ আছে ফেব্রুয়ারির শব্দ আছে মার্চের শব্দ আছে গ্রেনেড বোমার এবং গাড়ির পার্চে। ভয়াবহ শব্দ ছিল পাকিস্তানি শাসনেে এই পৃথিবীর সেরা শব্দ বঙ্গবন্ধুর ভাষণে। আলম তালুকদার

Read More

৭ই মার্চের অমর মহাকাব্য

৭ই মার্চের অমর মহাকাব্য

শত বছরের শত সংগ্রাম শেষে রবীন্দ্রনাথের মতো দৃপ্ত পায়ে হেঁটে অতঃপর কবি এসে জনতার মঞ্চে দাঁড়ালেন। তখন পলকে দারুণ ঝলকে তরীতে উঠিল জল, হৃদয়ে লাগিল দোলা, জনসমুদ্রে জাগিল জোয়ার সকল দুয়ার খোলা- ; কে রোধে তাঁহার বজ্র কণ্ঠ বাণী ? গণসূর্যের মঞ্চ কাঁপিয়ে কবি শোনালেন তাঁর অমর কবিতাখানি: ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম।’ সেই থেকে ‘স্বাধীনতা’ শব্দটি আমাদের। -নির্মলেন্দু গুণ ৭ মার্চ ১৯৭১-সে এক দিন এসেছিল বাঙালির জীবনে। জাতির স্বপ্নদ্রষ্টা ভাষণ দেবেন। সকাল থেকেই প্রতীক্ষার প্রহর গুণেছে মানুষ। সব শ্রেণি-পেশার মানুষ ভীড় জমিয়েছিলে রমনার রেসকোর্স ময়দান,…

Read More

ভাষণ

ভাষণ

সারা বিশ্বে বাঙালিদের দিতে হবে আসন সাতই মার্চে বঙ্গবন্ধু দিয়েছিলেন ভাষণ। সেই ভাষণই ছিলো যে তাঁর স্বাধীনতার ডাক বীর বাঙালি অস্র হাতে থাকেনি নির্বাক। মার্চ মাসেতে শুরু হয়ে ডিসেম্বরে শেষ বঙ্গবন্ধুর চেষ্টাতে আজ পেলাম বাংলাদেশ।  

Read More

প্রিয়ভাষিণী ফেরদৌসীকে যেমন দেখেছি

প্রিয়ভাষিণী ফেরদৌসী

কিছু কিছু মানুষ আছে জীবন যাঁদের পথ চেনায় না।তাঁরাই জীবনকে পথ চিনিয়ে নিয়ে যান। ফেরদৌসী ছিলেন তেমন একজন মানুষ। জীবনের জটিলতা আর একাকীত্বকে ভুলতে  প্রকৃতির কাছে বারবার হাত পেতেছেন তিনি।এই যন্ত্রণার প্রতিফলন তাই তাঁর শিল্পে আমরা দেখতে পাই। প্রকৃতির প্রতি অপরিসীম ভালোবাসা আর জীবনবোধ তাঁকে তাই করে তুলেছে  অনন্য এক শিল্পী। অবচেতন মনে তাঁর ছিলো দুর্বলের প্রতি ভালোবাসা তাইতো প্রকৃতির তুচ্ছ জিনিসগুলি তাঁর হাতের ছোঁয়ায় হয়ে উঠেছে অসাধারণ সব শিল্প। জীবনকে সুন্দর দৃষ্টিতে দেখা, ব্যতিক্রমী এই সাহসী নারী তাই নির্ভীক কন্ঠে সোচ্চার হয়েছিলেন ৭১-এর নির্যাতিতা নারীর কথা সাহসের সাথে উচ্চারণ…

Read More

প্রিয়ভাষিণী

প্রিয়ভাষিণী

কোথায় তুমি এখন? শঙ্খচিল নাকি শালিখের  নাকি কার্তিকের নবান্নের দেশে ? নাকি অন্যত্র। যাকে সবাই বলে‘ না ফেরার দেশ!’ দক্ষিণাঞ্চলের লবণ জল গায়ে মেখে বড় হয়েছ তুমি। সুন্দরবনের উদাত্ততা আর এক ঝাঁক নদী তোমাকে শক্তি দিয়েছে। রূপসা পসুর শিবসা  মধুমতি চিত্রা তোমাকে ছুঁয়েছে বার বার।  অফুরান প্রাণ জুগিয়েছে তোমার মন আর শরীরের জমিনে।। মৌয়ালী মাঝি- মাল্লা নোনাজলের খেটে খাওয়া মানুষেরা তোমাকে  প্রেরণা জুগিয়েছে । সে প্রেরণা আর শক্তি নিয়ে তুমি মহীরুহ হয়েছ। তুমি এক অনন্যা। তোমার হাতের পরশে ফেলে দেয়া খড়কুটো , ঝরা পাতা , শুকনো ফুল শিল্প হয়ে উঠেছে।…

Read More