১৬ই ডিসেম্বরের কথা / অনুপা দেওয়ানজী

মুক্তিবাহিনীর চুড়ান্ত বিজয়ের খবর আসছে বিভিন্ন জায়গা থেকে তখন।একে একে শত্রুমুক্ত হচ্ছে বিভিন্ন অঞ্চল। আগরতলার মোহনপুর শরণার্থী শিবিরে অন্যান্য দিনের মতোই আমরা নিজেদের কাজে সেদিন ও যথারীতি ব্যস্ত ছিলাম। ক্যাম্পের বারান্দায় মাটির উনুনে কেউ  রান্নার জোগাড় করছে,কেউ বা বাচ্চাদের সামলাচ্ছে,কেউ বা যুদ্ধের পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করছে। রেডিওতে মুর্হুর্মুহু ভারতীয় সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল মানেকশ’র ‘হাতিয়ার ডাল দ ‘ বিবৃতি প্রচার চলছে।কাজের মধ্যেও সবার মধ্যেই এক তীব্র উত্তেজনা  কি হয়, কি হয়! কারণ আমেরিকানর সপ্তম নৌ বহর তখন তীব্র বেগে ছুটে আসছে পাকিস্তানকে রক্ষা করার জন্যে। হঠাৎ ছোটো বোন ছন্দা চেঁচাতে চেঁচাতে…

Read More

চা স্পৃহা চঞ্চল/ অনুপা দেওয়ানজী

সকালে ঘুম থেকে উঠেই আলসে  চোখে ধোঁয়া ওঠা চায়ের পেয়ালাতে চুমুক দেবার সাথে সাথে সব জড়তা দূর হয়ে স্নিগ্ধ এক প্রশান্তিতে যেন শরীর আর মন দুটোই ভরে ওঠে। চায়ের  যে কী এক জাদুকরী ক্ষমতা রয়েছে  তা বলার নয়। স্বাদে,গন্ধে,উষ্ণতায়, রূপে,রঙে সে যেন জীবনীশক্তির  এক আধার। কত যে তার রূপ। দুধ চা,সবুজ চা,কালো চা,লাল চা,জেসমিন চা,গোলাপ চা, মালাই চা,নুন চা,ঝাল চা,সাতরং চা।আরো যে কত চা! হালে আবার আমদানি হয়েছে তন্দুরী চা। সে চায়ের নাকি কোন তুলনাই হয় না। আমি নিজে সাধারণত লিকার চাই পান করি,  তবে তন্দুরী চায়ের গুণগান শুনে একদিন…

Read More

স্মৃতির ঝাঁপি থেকে ২ – ঝোলাগুড় ও সোয়েটারের কাহিনী/ অনুপা দেওয়ানজী

আমার শাশুড়ি প্যাকেটটা হাতে নিয়ে উলগুলি  কি রঙের তা দেখার জন্যে বের করে দেখেন বেবী পিংক আর ইয়ালো কালারের দুই রকম  উল। আমার মাও ভারি সুন্দর উল বুনতেন। তবে আমার শাশুড়ির বোনা কোন কিছু আমি তখনো দেখিনি। তখনকার দিনে বিভিন্ন ধরনের সেলাই মহিলারা ফ্রেমে  বাঁধিয়ে তা ঘরের দেয়ালে টাঙ্গিয়ে রাখতেন। আমি আমার শাশুড়ির হাতের যে সব সেলাই দেখেছি তা আমার মোটেই ভালো লাগেনি। যেমন  ক্রসস্টিচে সেলাই করা  লক্ষ্মীর একটা ছবিতে খেয়াল করে দেখেছি লক্ষ্মীর এক চোখ বন্ধ। আবার শিশু গোপালের এমব্রয়ডারিতে গোপালের পা দুটি এমনই মোটা ছিলো যে  দেখে মনে…

Read More

স্মৃতির ঝাঁপি থেকে-১: ঝোলাগুড় ও সোয়েটা্রের কাহিনী/ অনুপা দেওয়ানজী

উলের পোশাক  কিনতে চাইলে আজকাল আর ভাবতে হয় না, অপুর্ব সব নকশার সোয়েটারে বাজার ভর্তি থাকে। পছন্দ করে তুলে নিলেই হল।তবে এসব পোশাকগুলি তৈরি হয় মেশিনে। আমাদের সময়ে এটি ছিল না। তখন দেখা যেত শীত আসার আগে থেকেই ঘরে ঘরে মায়েদের হাতে উল আর কাঁটা। অবসর সময়ে তাঁরা প্রিয়জনদের জন্যে সোয়েটার বুনতেন। একে অন্যকে ডিজাইন দিতেন, কার আগে কে বুনবেন তা নিয়ে তাঁদের মধ্যে রীতিমত প্রতিযোগীতাও হত। তবে সে সময়ে দেশের বাইরের উল বাজারে দুর্লভ ছিল। এবিসি ও ভালিকা নামের দুটি ব্রান্ডের উল দিয়েই সবাই মোটামুটি বুনতেন। আমার এক পিসতুতো…

Read More

প্রণমি তোমায় পিতা/ অনুপা দেওয়ানজী

১৫ই আগস্টের সকাল। সবে সিলেট থেকে ঢাকাতে এসেছি। ঘর দুয়ার এখনো ভালো করে গোছানো হয়নি। মালপত্র কিছু কিছু ঘরে এসেছে, বাকিটা অফিসের গোডাউনে। বিছানা ছেড়ে উঠবো উঠবো করছি এমন সময় প্রতিবেশীর রেডিও থেকে হঠাৎ খুব উচ্চগ্রামে অদ্ভুত আর অবিশ্বাস্য এক কন্ঠস্বর ভেসে আসতে লাগলো, ‘শেখ মুজিবকে  হত্যা করা হয়েছে। জননেতা খন্দকার মোশতাক আহমদের নেতৃত্বে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ক্ষমতা দখল করেছে। দেশে সামরিক আইন জারি করা হয়েছে এবং সারাদেশে কারফিউ জারি করা হয়েছে।’ ইত্যাদি, ইত্যাদি। আমার মাথায় যেন বজ্রাঘাত হলো। লাফ দিয়ে বিছানা ছেড়ে উঠে পড়লাম। এ কী শুনলাম আমি? আমার মাথা…

Read More

আমার দেখা ঈদ/ অনুপা দেওয়ানজী

আমাদের যুগে আমরা কী ঈদ, কী দুর্গাপূজা, কী নববর্ষ সব ধরণের উৎসব খুব  খোলামেলাভাবেই উদযাপন করতে করতে বড় হয়ে উঠেছি। ধর্ম সেখানে কখনোই প্রত্যক্ষ প্রভাব বিস্তার করতো না। সবাই সবার ধর্ম বিশ্বাসের ওপরে  গভীর আস্থা বা শ্রদ্ধাবোধের মধ্যে বেড়ে উঠেছি। মূলত পরিবার, পরিবেশ আর শিক্ষাঙঙ্গন থেকে আমরা এই শিক্ষার মূলমন্ত্র পেতাম । ভিন্ন সম্প্রদায়ের  ধর্মীয় উৎসবের প্রতি পরস্পরের এই  নির্মল অংশগ্রহণ আমাদের দিয়েছে অফুরন্ত এক সজীবতা আর অসাম্প্রদায়িক এক  মনোভাব। কালের প্রবাহে আমি  যেন কোথায় হারিয়ে ফেলেছি  সেই সব দিনগুলি। মনে মনে ভাবি, কিভাবে হারালো আমার দেখা সেইসব আন্তরিক দিনগুলি?…

Read More

রম্য কাহিনি/অনুপা দেওয়ানজী

পিঠে-রক্তবীজ-অনুপা দেওয়ানজী

শীতকাল আসলেই মা নানা রকম পিঠে বানাতেন।  ভাপা, চিতুই, চসি,পুলি , পাটিসাপটা, গোকুলপিঠা,চন্দ্রপুলি আরো কত রকমের! দিদিমার কাছ থেকে শেখা মায়ের চিতুই পিঠে বানাবার কায়দা ছিলো একেবারেই অন্যরকম। খই ভিজিয়ে সেটা পিষে নিয়ে চালের গুঁড়োর কাইয়ের সংগে মিশিয়ে সেই চিতুই তৈরি হত। পিঠেগুলি যেমন ফুলতো  তেমনি আবার মোলায়েমও হত। সে পিঠের ওপরে তারপরে ছড়ানো হত নলেন গুড় দিয়ে তৈরি করা পাতলা ক্ষীর।     ভারি চমৎকার লাগতো খেতে।   এছাড়া নারকেল কুচো আর কিশমিশ দিয়ে রসের পায়েসও করতেন। রসের কথায় মনে পড়ছে কাঁচা রস খাবার কথা।   কোয়ার্টারের অদুরেই ছিলো পাশাপাশি…

Read More

ঘুরে আসি ঋগ্বেদের যুগ

ঘুরে আসি ঋগ্বেদের যুগ অনুপা দেওয়ানজী

ঋগ্বেদের যুগ কেমন ছিলো? এ প্রসঙ্গে আমাদের অদ্ভূত একটা ধারণা আছে।   সে ছিলো বটে এক সত্যযুগ। তখন মানুষ মিথ্যে বা পাপ কাকে বলে জানতো না।দুঃখ বা দারিদ্র্য ছিলোনা।  দেবতারা নেমে আসতেন মর্ত্যে। মানুষের সাথে তাঁদের মুখোমুখি বসে কখা হতো। আসলেই কি তাই? চলুন একবার দেখে আসি ঋগ্বেদের সময়ে মানুষের জীব যাত্রা কেমন ছিলো? বইয়ের পাতা ওলটালে দেখতে পাই এটি রচিত হয়েছিলো ১২০০- ৯০০ খৃস্টপূর্বে। পন্ডিত হরপ্রসাদ শাস্ত্রী বলছে,ন ঋগ্বেদ একটি কবিতা সংকলনগ্রন্থ।      গ্রীক স্তবের মতো এই গ্রন্থের তিন অংশ। যেখানে রয়েছে    দেবতার রূপ, আপ্যায়ন আর প্রার্থনা। দেবতার রূপে…

Read More

পিকনিকে একদিন

প্রতিবারের মতো বার্ষিক বনভোজনে যাবো ক্লাবের সব বন্ধুরা মিলে। তাই  নিয়ে খুব হই চই আর জল্পনা কল্পনা চলছে। ক্লাবের ফাহমিদা নামের একজন সদস্যের খুব ইচ্ছে তাদের গ্রামের বাড়ি ঘোড়াশালেই এবারে পিকনিক করা। সাথে সাথে সবাই  একবাক্যে বলে উঠলো,  ‘তাই হোক।পিকনিক স্পটে গিয়ে তো প্রতি বছরেই পিকনিক করা হয়।এবার না হয়  গ্রামেই করা হোক।’ নির্দিষ্ট দিনে দুটো বাসে করে সবাই আনন্দ করতে করতে চলেছি। ফাহমিদা আগেই গ্রামের বাড়িতে খবর দিয়ে রেখেছিলো। আমরা এসে দেখি সে এক এলাহি কাণ্ড! বাড়ির উঠানে প্যাণ্ডেল আর শামিয়ানা খাটানো। একধারে বাবুর্চি রান্না করছে।রান্নার গন্ধে চারিদিক ম…

Read More

কালরাতের বিভীষিকা ও স্বাধীনতা

কালরাতের বিভীষিকা ও স্বাধীনতা অনুপা দেওয়ানজী

১৯৭১ এর ২৫শে মার্চ বা কালরাত্রি যাকে এখন গণহত্যা দিবস বলে আমরা জানি সেদিন আমি স্বামীর সাথে চট্টগ্রাম থেকে রাতের মেলে সিলেট যাবো বলে সব কিছু গুছিয়ে নিয়েছি। বিকেলে বাবা বললেন, তোরা তো যেতে পারবি না রেল লাইন উপড়ে ফেলা হয়েছে। অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়ে গিয়ে ভাবছিলাম কি করবো। আর সে রাতেই শুরু হল‘ অপারেশন সার্চ লাইটের’ নামে গণহত্যা।ঠিক মধ্যরাতে কামানের বিকট গর্জনে কেঁপে উঠলো ঢাকা শহর ।বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত অধ্যাপক, নিরীহ ছাত্র, পুলিশ, পবিত্র শহীদ মিনার , জনতা কেউ তাদের হাত থেকে সেদিন রেহাই পায়নি। গুলির শব্দে, কুকুরের চিৎকারে, মানুষের আর্তনাদে…

Read More