আলো ভালবাসা/হাসনাইন সাজ্জাদী

সোডিয়াম বাতিঘর নিভু নিভু রাজপথে নিভে যায় এনার্জি লাইট সূর্যের সাক্ষাতে। আলোর প্রখর তাপে অন্ধকার আৎকে কেঁদে ওঠে সংযোজন বিয়োজন তার অমাবস্যা পূর্ণিমাতে। কবে কোন শুভক্ষণে সূর্য জড়িয়ে ছিল আলোতে আলোক বর্ষ পথ পেরিয়ে আমাকে ভালবাসতে। ২ শব্দ ঋণ নির্মম নিষ্ঠুরতায় ছেঁড়া সাইবার আলনায় অগ্নি মিছিল কক্ষপথে প্রতিবাদ ভাবনায়। খুঁজে ফেরি মাহাত্ম্য মানব জমিন দৌর্দণ্ড প্রতাপে অটোভর্তি ঋণ। সকরুণ পরিণতি অন্ধকারের হাতছানিতে নিদারুণ যাতনায় বসে থাকি আঁড়ি পেতে। হাসনাইন সাজ্জাদী Share this…FacebookGoogle+TwitterLinkedinPinterestemail

Read More

প্রকৃতির সন্তান/হাসনাইন সাজ্জাদী

প্রকৃতির সন্তান

প্রকৃতির সন্তান হারিয়ে যাওয়া ফুল পাখি এলেবেলে মেঠো পথ হেটেছিল শুভক্ষণে আমার সাইত্রিশ বসন্ত। আমি বিয়ের পিড়িতে বঞ্চিত সে নিঝুম রাতে আমার বাসরে। ফুলের মত মেয়েটি কল্পনায় সে আমার আজও ফুটে হুল হয়ে আজো ভালোবাসি। বিলম্বে মা হবার চেষ্টা তার আমি দূর থেকে ফুঁকে দেই গর্ভ প্রকৃতির অলৌকিকত্বে সাফল্য দ্বারপ্রান্তে প্রকৃতি আমার ই। উত্তম পুরুষ ঘড়ির কাটায় ছুঁয়ে যায় সময়ের পরিমাপ জীবনের জলছবি আঁকা জেরস্কপি মেশিনে। মহাকাশ ফেরি করে গ্যাস ভর্তি বেলুনে সাত রঙ ধারাপাত খুঁজে কে বা কারা আনমনে। ধূসর বাতাসের তুলোয় কে উড়ে ট্রাফিক আইল্যান্ডে কার্বনডাইঅক্সাইড ঝড়ে শিশায়…

Read More

বেপরোয়া কাব্য

শীতের ঝিরঝির বাতাসে

মৃদুমন্দা বাতাস কখনো আমাকে বলেনি চুমু দীর্ঘ হবে মিলন মেলার। শীতের ঝিরঝির বাতাসে কাঁপেনি প্রিয়ার ঠোঁট চুমুতে ছিল আমার সাত রঙের উষ্ণতা। রাখালিয়া বাঁশি সুমধুর ঝরনার জলকেলি সুর মাঝরাতে শিৎকার কোনটাই পর নয়। আমি উষ্ণ মেলার পথিক শীত কী বসন্তকাল দুপুর কি রাত তাতে আমার কি আসে যায়।   Share this…FacebookGoogle+TwitterLinkedinPinterestemail

Read More

শুধুই তুমি

শুধুই তুমি

ভোরের সূর্যোদয়ে স্নিগ্ধ আলো সুললিত কণ্ঠ হয়ে হৃদয়টা নেড়ে দিলে কতদিন পর? রাতটুকু গভীর ছিল নেটে পাওয়ার ব্যর্থ প্রত্যাশা হতাশা কেটে গেলো দিনান্তে সূর্যরশ্মি হলে প্রত্যাশিত তুমি। তোমার চোখের ঝিলিকে সেদিন কুয়াশাচ্ছন্ন ছিলাম তবু প্রেম উল্লাস না কবিতা জানা ছিলনা আজ জানি শুধুই প্রেয়সী। সকালটা থেমে যাক আজ থেকে খুব কাছে থেকো তুমি আমার কবিতার ছন্দ অলংকার উপমা আর উৎপ্রেক্ষা বাণী। Share this…FacebookGoogle+TwitterLinkedinPinterestemail

Read More

কবিতার ক্লাস

কবিতার ক্লাস

কবিতা শেখাবো বলে তোমার বুকে কলাপাতা রঙের সবুজ শাড়ীর নড়ে উঠাকেই আমি বলি-কলাপাতা রং শাড়ীর দোল। ‘মাধবী এসে বলে যাই’ কে আমি বলি তোমার আসা বিদ্যুৎ ঝিলিক হৃদয়ে তোমার আনাগোনাকেই আমি বলি- হৃদয়ে তুমি লোডসেডিং। কবিতা শেখাবো বলে জানালা পাশে আর গুবাক তরুর সারি আমি দেখিনা মঙ্গলে তোমাকেই এলিয়েন আক্রান্ত দেখি টেলিস্কোপে। ফুল তুলতে মামার বাড়ি যেতে আমি আর রাজি নই কবিতা শেখাবো বলে লেখি আয় সোনারা রকেট কিনি। কবিতা শেখাবো বলে তোমার বুকের দুঃখ চেপে ধরে বলি দুঃখ চাপলেই কবি এভাবেই দিন কাটে কবিতার হাটে।   Share this…FacebookGoogle+TwitterLinkedinPinterestemail

Read More

শুধুই তুমি

ভোরের সূর্যোদয়ে স্নিগ্ধ আলো সুললিত কণ্ঠ হয়ে হৃদয়টা নেড়ে দিলে কতদিন পর? রাতটুকু গভীর ছিল নেটে পাওয়ার ব্যর্থ প্রত্যাশা হতাশা কেটে গেলো দিনান্তে সূর্যরশ্মি হলে প্রত্যাশিত তুমি। তোমার চোখের ঝিলিকে সেদিন কুয়াশাচ্ছন্ন ছিলাম তবু প্রেম উল্লাস না কবিতা জানা ছিলনা আজ জানি শুধুই প্রেয়সী। সকালটা থেমে যাক আজ থেকে খুব কাছে থেকো তুমি আমার কবিতার ছন্দ অলংকার উপমা আর উৎপ্রেক্ষা বাণী। Share this…FacebookGoogle+TwitterLinkedinPinterestemail

Read More