পুরুষতান্ত্রিক সমাজে নারীমুক্তির স্বপ্ন

পুরুষতান্ত্রিক সমাজে নারীমুক্তির স্বপ্ন

নারী নির্যাতন পরিবার ও সমাজে ভয়াবহ রূপ নিয়েছে একথা অস্বীকার করার উপায় নেই। যৌতুকের জন্য, ফতোয়ার শিকার হয়ে, স্বামীর পরকীয়ার কারণে, ধর্ষণ কিংবা গণধর্ষণের শিকার হয়ে,শ্বশুর-শাশুড়ি-দেবর-ননদের অত্যাচার-নির্যাতনে এ দেশের অনেক অসহায় নারীর প্রাণ চলে গেছে, এখনো যাচ্ছে। কেউ কেউ চলন্ত ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে সন্তানসহ গায়ে কেরোসিন ঢেলে আত্মাহুতি দিয়েছে। নারী নির্যাতন রোধে নারী সংগঠন, নারীবাদীরা এমনকি সরকারও সোচ্চার। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। উপরন্তু দিল্লিতে চলন্ত বাসে গণধর্ষণের ঘটনার পর পরই আমাদের দেশে একাধিক ঘটনা ঘটে। মানিকগঞ্জ, সাভার ও বরিশালে চলন্ত বাসে এবং সিএনজিতে এ ধরনের ঘটনা ঘটে।…

Read More

অসহিষ্ণু সমাজ ও আমরা

পাবলিক বাসের গায়ে লেখা থাকে ‘ব্যবহারে বংশের পরিচয়’। আবার নীতিকথা হিসেবে জেনেছি ‘জন্ম হোক যথাতথা কর্ম হোক ভালো’। দুটো বাক্য পরস্পর বিপরীতমুখী হলেও দুটোরই উদ্দেশ্য মহৎ। ব্যক্তি যদি নিজে অন্যের সঙ্গে ভালো-মধুর ব্যবহার করেন আর ওই ব্যবহারে যদি কারো মন ভরে কিংবা গলে যায় তবে কেবল ওই ব্যক্তির কেন, তার চৌদ্দগুষ্টির সুনাম করবে। ঠিক তেমনি নীচু বংশের কেউ যদি মহৎ কাজের স্বাক্ষর রাখেন সমাজে, রাষ্ট্রে কিংবা বিদেশে, তখন তার বংশকে ছাপিয়ে তিনি নিজেই মহিয়ান-উজ্জ্বল হয়ে ওঠেন। দুটোর ব্যাখ্যা যেভাবেই দেই না কেন, শেষ পর্যন্ত আমি ভালো তো জগ ভালো এ…

Read More