স্বপ্ন সোপান/ সু‌মি সৈয়দা

শর্তহীন কথা থে‌কে যায় কৃষ্ণচূড়ার ডা‌লে,ঘা‌সের শি‌শি‌রে ছুঁ‌য়ে থাকা জীবন‌শৈলী‌তে,অা‌রো কিছু ভুলচুক র‌য়ে যায় রজনীগন্ধা,‌গোলা‌পের প্রেয়সী উপহা‌রে উত্তপ্ত বিষন্ন দীর্ঘশ্বা‌সে। হা‌তের মু‌ঠোয় উদ্ভ্রান্ত নির্জনতা র‌ঙিন দুঃ‌খের চাদ‌রে দুল‌তে দুল‌তে হা‌ওয়ায় মি‌লি‌য়ে যায় কমলা গোধূলী‌তে থে‌মে থে‌মে ধূসর মনপব‌নের দিগ‌ন্তে।      ম‌নে পড়ে কি ‌ নৈঃশ‌ব্দে লুপ্ত নিভাঁজ সে সম‌য়ের কথা পরম প্রত্যা‌শিত ন‌ন্দিত নিঝ‌ুম স্বপ্ন          হাত বাড়া‌লেই একটু যেন খ‌ুব কাছ থেকে ধর‌তে ধর‌তেই মি‌লি‌য়ে গে‌লো। সু‌মি সৈয়দা Share this…FacebookGoogle+TwitterLinkedinPinterestemail

Read More

বেদনার কুয়াশায় জারুল অাগুন

বেদনার কুয়াশায় জারুল অাগুন

অাজ অাবার একদফ‌া হ‌য়ে গে‌লো রুবা‌বের সা‌থে।ইদা‌নিং প্রজ্ঞা‌কে সে একেবা‌রেই সহ্য কর‌তে পার‌ছে না। প্রজ্ঞার ব্যাপারটা তো অার এখন লু‌কোচু‌রির পর্যা‌য়ে নেই ,রুবা‌বের তীক্ষ্ণ হৃদ‌য়ের নীলাভ তা‌পে প্র‌তি‌নিয়ত পুড়‌ছে। প্রজ্ঞা ভাঙ‌তে ভাঙ‌তে নিঃ‌শ্বেষ অাজ,যন্ত্রণার অ‌ভিশপ্ত কুড়ালে ক্ষত‌বিক্ষত। সে নারী। তার ভুল ক্ষমা‌যোগ্য নয়।পুরুষ,সমাজ অাঙ্গুল তোলার অদমনীয় ফূ‌র্তি‌তে মে‌তে উঠ‌বে জে‌নেও সে কি ক‌রে অমন কাজ কর‌তে গে‌লো! অাজ সে অসহায় উপল‌ব্ধি ক‌রে শিক্ষার।‌শিক্ষাটা থাক‌লে মাথা উঁচু কর‌তে পার‌তো, রুবা‌বের অপমান, উ‌পেক্ষা বঞ্চনা সহ্য কর‌তে হ‌তো না এরকম নির্দয়ভা‌বে। কাঁ‌দে প্রজ্ঞা।অ‌নেক‌দিন পর পাথ‌রের মূ‌র্তি‌র চৈত‌ন্যের স্ত‌ম্ভিত দেয়া‌লে অাঘাত হান‌লো যেন। কত…

Read More

ছুঁয়ে যাওয়া গেরুয়া বিকেল

ছুঁয়ে যাওয়া গেরুয়া বিকেল

“মোরা ভোরের বেলা ফুল তুলেছি,দুলেছি দোলায়-বাজিয়ে বাঁশি গান গেয়েছি বকুলের তলায়,,,,,,” শুনছি আর শুনছি।কি হয়েছে আজ আমার,কেন এমন লাগছে।ধূসর মেঘ বারবার ঢেকে দিচ্ছে লুকোচুরি খেলতে থাকা চাঁদটাকে।এরকম ঝাপসা আলো আঁধারী আকাশ দেখলে বুকের ভেতর কোথায় যেন শূন্যতার বিলাপ টের পাওয়া যায়। “আয় আর একটিবার আয়রে সখা,প্রাণের মাঝে আয়। মোরা সুখের দুখের কথা কব,প্রাণ জুড়াবে তায়।”,,, ছাদের নিরিবিলি হাওয়া এলোমেলো করে দিচ্ছিলো আমাকে,আর করছিলো মনটাকে বেহিসেবী। কামিনীর টবের পাশটায় বসে পড়লাম,শব্দহীন রুদ্ধশ্বাস আমায় জ্বালায়,অন্তরের ঘুনপোকা ঝাঁঝরা করে অহর্নিশি। নিজেকে পোড়াতে পোড়াতে বেদনার প্ল্যাটফর্মে  খাঁ  খাঁ জারুলের দীর্ঘশ্বাসে নিমগ্ন। মেনে নিয়েছিলাম তো…

Read More

নারীর আর্তনাদের শিষ শেষ হবে কবে

নারীর আর্তনাদের শিষ শেষ হবে কবে

মেয়েটা আত্মহত্যা করলো শেষ পর্যন্ত।বোকামী আর ভুলের খেসারত জীবন দিয়ে দেখালো।বোকা,আর কতকাল এই কপটতার দুনিয়ায়, মিঠেকথার নকলী কথায় ভুল করবে।আজকাল সামাজিক নানা অনাচারের সাথে সাথে ডিজিটাল অপরাধ ভীষণভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফেইসবুক,ইন্সট্রাগ্রাম,ভাইবার,ইমো,হোয়াটস অ্যাপ এধরনের আরো আধুনিক সব অ্যাপ এর মাধ্যমে শিশু,কিশোরী,তরুণীরা ঝুকছে আর নিজেদেরকে সর্বনাশের গর্তে ফেলছে অনায়াসে। প্রতারণার শিকার হচ্ছে ফেইসবুকে। সেদিন নবম শ্রেণীর মেয়েটিকে প্রেমের নামে কয়েকমাস ঘুরিয়ে, দেখা করার নাম করে অনার্স পড়ুয়া যুবকটি শ্লীলতাহানী করলো। পরিবার,সমাজের ভয়ে, লজ্জায় মেয়েটি আত্মহত্যা করলো। বর্তমানে এই ইতো চলছে। কন্যাসন্তানদের নিয়ে অসহায় বাবা মায়েরা। কোনোখানে নিরাপত্তা নাই,পদে পদে হয়রানী।কোথাও নিরাপত্তার বেষ্টনী…

Read More

শত ডানার প্রজাপতির জন্য:

তুমি হতে চাইলাম

তুমি হতে চাইলাম         মাঝে মাঝে ঘুম থেকে উঠে খুব রোদ্দুর হতে ইচ্ছে করে বাতাসের গন্ধে তন্দ্রাভাঙা মমতায় দিনের গায়ে লেপটে থাকবো বলে। ঠিক ঐদিন বৃষ্টিশেষের আকাশ দেখে রঙধনু হতে ইচ্ছে হলো রঙতুলিতে আঙ্গুল ডুবিয়ে জলসিঞ্চন গেরুয়া সাঁঝ আঁকবো বলে। শেষে বুঝি তুমি হতে চাইলাম পাখীর ডানায় প্রেম জাগিয়ে একটা ভেজা রাত কুয়াশায় বিলিয়ে তোমার মত কবিতা লিখবো বলে। Share this…FacebookGoogle+TwitterLinkedinPinterestemail

Read More

ঘাসফুল মেয়ে

সত্যি করে বলতো মেয়ে দুঃখভরা তৃণসবুজ ধূসররঙা পথের ধূলো     আলতা লালের হৃদয়শিখর     সরিষা ক্ষেতের চমকে হাসা      নীককন্ঠী আঁচল কোথায় নিটোল পায়ে দগ্ধ পায়েল আগুনক্ষত কোমরবিছা তীব্র বিষের দীঘির কাজল     বেলোয়াড়ী শাড়ীর পাড়ে     চুলের ভাজে বেলীর সাজে     অশ্রু চোখে ভাসিস কেন। প্রমোদ বাসর চুমুর আমোদ ফুরফুরে সেই সফেদ সলাজ ফুরালো বুঝি নীলভুলে সব       মেয়ে তুই ভাঙিস কেন       ঘাসফুল হাসে মিষ্টি রোদে       শিশির মুকুট জড়িয়ে মাথায় নকশী কাঁথার প্রেম বুননে নিজের ভিতর হোলির রঙে হাতের মুঠোয় ভরবি আকাশ। Share this…FacebookGoogle+TwitterLinkedinPinterestemail

Read More

ইজেলের র‌ঙে ফেব্রুয়ারী

তোর কি ম‌নে আছে,ফাগুন? অলৌ‌কিক স‌ম্মোহ‌নের স্বচ্ছ অনুরা‌গের বিমূর্ত আমার মু‌খে মুখ লা‌গি‌য়ে তোর সেই হঠাৎ বে‌রি‌য়ে পড়া অব্যক্ত বুলি! সবুজ কন্ঠস্বরে মো‌মের মত হৃদ‌য়ে তরঙ্গ বা‌জি‌য়ে সে সুর উদ্বেল অনুভূ‌তি‌তে ম‌নের বো‌ধে যেন ঝলম‌লে ছ‌ন্দের জলোচ্ছ্বা‌সে ভে‌সে‌ছি। হা‌রি‌য়ে যে‌তে যে‌তে কোল জু‌ড়ে লে‌প্টে থাকা সেই বর্ণমালা তো‌কে অনুভ‌বের অচেনা প্রহ‌রে আশ্রয় ক‌রে কাঁকর বিছা‌নো পথ পে‌রি‌য়ে‌ছি। জা‌নি যে শিশু‌টির মু‌খের ভাষার জন্য তোর বাবা রক্ত দি‌য়ে রাজপথ রাঙা‌লো সেখা‌নে কি আজ তোর প্লাবন শো‌নে কিছু? কৃষ্ণচূড়ার অস্ফুট বাতা‌সের ক্রন্দন ‌শি‌শি‌রে ভেজা ঘাসফুল পা ছোঁয়‌নি তাঁর? কতকাল বি‌নিদ্র প্রহ‌রে সে…

Read More

ক‌বিতার অহঙ্কার

ক‌বিতা খুঁজ‌তে পে‌য়ে গেলাম চু‌লের ভাঁজে বাবুই‌য়ের বাসা ভরদুপু‌রে হাতফস‌কে শব্দগু‌লো নাচ‌তে নাচ‌তে নাই‌তে গেল। ঝাপসা কুয়াশায় রা‌জ্যের উপমা ঝিঁ‌ঝির কোরা‌সে ছন্দ মেলা‌লো। ক‌বিতার উপবা‌সে ডা‌য়েরির পাতার কো‌লে ময়ূরকন্ঠীর পালক আক‌স্মিক উড়ে উড়ে কই‌রে ধূধূ দিগন্তের কোন রেখায় অক্ষ‌রের আবছায়া গোঙানির অহঙ্কার ক‌বিতার ছায়া ফি‌রে পে‌তে যে‌য়ে কাঙাল আমি নিঃস্ব হ‌য়ে ভা‌বের গা‌ঙে ডু‌বি। Share this…FacebookGoogle+TwitterLinkedinPinterestemail

Read More