বিখ্যাত মানুষের প্রেমের কথা

প্রেম  অনেক রকম। বিচিত্রি  তার রূপ রং । আর এই বৈচিত্রের কাছে ধরা পড়ে প্রতিটি মানুষ। সাধারণ অসাধারণ নির্বিশেষে। আজ  কয়েকজন বিখ্যাত মানুষের প্রেমের কথা বলা হল।

রবীন্দ্রনাথ :

কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর যে কত বড় মাপের  প্রেমিক ছিলেন, তা আমাদের সবারই জানা। ‘ভালবেসে সখি নিভৃতে যতনে, আমার নামটি লিখো  তোমার মনেরও মন্দিরে’ অথবা  ‘সখি ভালবাসা কারে কয়’ এই ধরনের গান উঁচুমাপের  প্রেমিক মন না থাকলে  লেখা যায় না। প্রথম  যৌবনে কাদম্বরী  দেবী, আর  যৌবন সায়াহ্নে  মৃণালিনী   দেবীকে হারিয়ে তিনি ছিলেন দিশেহারা।  আর্জেন্টাইন নারী  ভিক্টোরিয়া ওকাম্পোর সঙ্গে তাঁর  প্রেমের সম্পর্ক ছিল বলেও অনেকে মনে করেন।

 

১৯২৪ সালে  পেরুর স্বাধীনতার শতবার্ষিকী অনুষ্ঠানে  যোগদানের জন্য তিনি দক্ষিণ আমেরিকা ভ্রমণ করেন।   সেই সময় আর্জেন্টিনায় ভিক্টোরিয়া ওকাম্পোর অতিথি হন। আর সৃষ্টি হয়, ‘আমি চিনি গো চিনি তোমারে ওগো বিদেশিনী’র মতো অনেক কবিতা, অনেক গান।

 

মাইকেল মধুসূদন দত্ত :

কলকাতা থেকে মাদ্রাজে যাওয়ার কিছুকাল পরেই মধুসূদন দত্ত  রেবেকা ম্যাকটিভিস নামে এক ইংরেজ যুবতীকে সাথে  প্রেম করে  বিয়ে করেন। তাদের দাম্পত্যজীবন সাত বছর স্থায়ী হয়েছিল। রেবেকার গর্ভে মধুসূদনের দুই পুত্র ও দুই কন্যার জন্ম হয়।  মাদ্রাজ জীবনের  শেষ পর্বে  রেবেকার সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। বিচ্ছেদের অল্পকাল পরে মধুসূদন এমিলিয়া আঁরিয়তো( হেনরিয়েটা)  সোফিয়া নামে এক ফরাসী তরুণীকে বিয়ে করেন।

 

 

নজরুল :

বিদ্রোহী কবি নজরুলের জীবনেও বিভিন্ন সময়ে  প্রেম এসেছে। নার্গিস ছিল নজরুলের জীবনের প্রথম নারী। কিন্তু  এক অজ্ঞাত কারণে বাসররাতেই তাঁদের  বিচ্ছেদ ঘটে। তবে নার্গিসকে কবি  কোনোদিন ভুলতে পারেননি। এর পর চির  প্রেমিক  নজরুল তরুণী প্রমিলার প্রতি আকৃষ্ট হলেন। প্রমিলার প্রতি গভীর  প্রেম থেকে তিনি ‘বিজয়িনী’ কবিতাটি রচনা করেন।

দুঃখ দারিদ্র ছিল নজরুলের  জীবনের অধিকাংশ  সময়ের সঙ্গি।  তবু  প্রেমের মাঝে তিনি খুঁজে  পেতে  চেয়েছিলেন জীবনের সান্ত্বনা।

Author: রক্তবীজ ডেস্ক

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Related posts

মতামত দিন Leave a comment