জোসেফিনকে লেখা নেপোলিয়ন চিঠি   

জোসেফিনকে লেখা নেপোলিয়ন চিঠি

বিখ্যাত লোকের প্রেমপত্র/ রক্তবীজ ডেস্ক জোসেফিনকে লেখা নেপোলিয়ন চিঠি      জোসেফিন, আমার জোসেফিন, গতকাল সারাটি বিকেল কাটিয়েছি তোমার পোট্রেটের দিকে চেয়ে থেকেই। কী করে পারো তুমি বলতো এই কঠোর মনের যোদ্ধার চোখেও জল আনতে? আমার হৃদয় যদি একটি পাত্র হয়, তবে সেই পাত্রে ধারণ করা পানীয়ের নাম দুঃখ। তুমি কি তা বোঝো জোসেফিন? আবার কবে তোমার আমার দেখা হবে? সে অপেক্ষার প্রহর যেন শেষ হতেই চায় না! সে অপেক্ষায়…   তোমারই নেপোলিয়ন বোনাপার্ট স্ত্রী ক্লেমিকে লেখা উইনস্টন চার্চিলের প্রেমপত্র আমার প্রিয় ক্লেমি, আমার মন পড়ে রয়েছে মাদ্রাজের ছোট্ট এক টেবিলে,…

Read More

প্রেমপত্র

প্রেমপত্র

পাখি, আমি তো তোমাকে তুই করে ডাকি, আর এই যে পাখি এই নামটাও আমি আদর করে রেখেছিলাম তোর জন্য।তুই তো আমার খাঁচায় পোষা সেই আদরের ছোট পাখিটাই; যাকে আমি অনেক অনেক ভালোবাসি আমার অন্তরের অন্ত:স্থল থেকে। তাইতো তোকে ভেবে কষ্ট পাই অনেক। “বহু দীর্ঘশ্বাসের পরেও চাপা পড়া দু:খগুলো বিদায় হচ্ছে না।” আমার কষ্টটা একটিবারের জন্যও বুঝার চেষ্টা করলি না তুই! আমি কতটা কষ্টে আছি তোকে বলতে চাই; কিন্তু তোর শোনার মতো সময় নাই যে। আমায় অবহেলায় দূরে সরিয়ে রাখলি? একটা মেসেজ দিলেও তার রিপ্লাইও পাইনা আমি। আমি কি এতোটাই অবহেলিত…

Read More

অদেখা ভালোবাসার মানুষ

প্রেমপত্র প্রিয় আকাশ​

প্রিয় আকাশ, এক অজানা প্রেম তুমি, নামটাও আমার দেয়া ছিলো আর নিজের অজান্তেই কখন যে তোমাকে ভালোবেসে ফেলেছি, তোমার প্রেমে পড়ে গেছি তা শুধু এই মনটাই জানে। জানিনা তুমি কে…..আর কেনইবা ডাকি তোমায় আমি , তোমার জন্য রাত জাগি আর একলাই বসে থাকি, তুমিতো অদেখা সেই স্বপ্ন, তুমি আমার কল্পনার রাজকুমার। মনকে প্রশ্ন করলাম “মন তুই কি চাস? যাকে ভুলে যেতে চাই তাকে বারবার কেন মনে করাস”? মন কি উত্তর দিলো, জানো তুমি? “ভুলে যাওয়ার জন্য তো আমাকে ব্যবহার করিস নি। আমাকে তো বলেছিলি সারাজীবন যাতে আমি তোর ভালোবাসাকে মনে…

Read More

নীলাঞ্জনার প্রেমের চিঠি

নীলাঞ্জনার প্রেমের চিঠি

ভুলতে চেয়েও তোমাকে ভুলতে পারি না। প্রেমের সংজ্ঞা কি জানো তুমি? বলতো কি? আমি কি প্রেম নিয়ে রিসার্চ করি, কি মনে হয় তোমার? না- গো করি না। হাজারো কাজের ভিড়ে একটু অবসর পেলাম, আমার বারান্দার পাশের গাছে পাখির মিষ্টি সুরের কুহুতান মিষ্টি ভোরের মতোই আমাকে আবেশে আবিষ্ট করে তোলে। তোমাকে তো মনে পড়ে গেল, মুখে আমার একটুকরো হাসি খেলে গেলো। কেন যেন এক ফোঁটা অভিমানি অশ্রু আমার গাল বেয়ে গড়িয়ে পড়লো। একি সর্বনাশা ভালোবাসা আমার! এর নামই কি প্রেম! আমরা দুজনতো কখনো দুজনার হাত ধরে হাঁটিনি, দুজনে দুজনার হাতটুকু পর্যন্ত…

Read More

অপেক্ষায় আছি, তোমার হাত ধরে প্রথম বৃষ্টিতে ভেজার

অপেক্ষায় আছি, তোমার হাত ধরে প্রথম বৃষ্টিতে ভেজার

শ্রাবণের ঝুম বৃষ্টি, ভরা চাঁদের আলো, আর গোলাপ। আমার ছোট্ট দুনিয়াকে আলোকিত করে দেয়ার জন্য যথেষ্ট । এইসব মুহূর্তগুলো মনে হয় সব সময় একা একা অনুভব করতে ভাল লাগে না । হঠাৎই মনে হয় পাশে কেউ থাকলে মন্দ হত না! কারো হাত শক্ত করে জড়িয়ে ধরে জল – জোছনার আলোর খেলা দেখা বুঝি অন্যরকম মাদকতায় ভরা হবে। ব্যাপারটা ভাবতে বেশ লাগে। মাঝে মাঝে বন্ধুদের কাছে শুনতাম তাদের স্বপ্নের রাজপুত্র বা রাজকন্যারা কেমন হবে, শুনতে মজাই লাগত। সে সময় টুকটাক আমিও ভাবতাম, আসলেই কেমন হবে আমার স্বপ্নচারী? নাহ, ঘোড়ায় চড়া রাজকন্যা…

Read More

ফেসবুক প্রেম

কি করছো জানু? তোমার কথা ভাবছি!!  ও তাই! তা কি ভাবছো? আমাদের সম্পর্ক তো ৬ মাস হয়ে গেল, অথচ তোমাকে এখন পর্যন্ত দেখলাম ই না। তোমার একটা ছবি দিবে? প্লিজ!!   না আমি খুব কালো, সুন্দর না। তুমি আমাকে দেখলে আমাকে আর ভালোবাসবে না!! আমাকে ভুলে যাবে!! আমি তোমাকে হারাতে চাই না। (এই বলে মেয়েটা আর তার ছবি দিলো না ছেলেটাকে, কারণ মেয়েটি কালো ছিলো, দেখতে সুন্দর ছিলো না) ” “মেয়েটা মাঝে মাঝে ছেলেটার প্রোফাইলে গিয়ে লুকিয়ে লুকিয়ে ছেলেটার ছবি দেখতো। ছেলেটা অনেক সুন্দর ছিলো। “মেয়েটা ভাবতো আমি হয়তো ওর…

Read More

মাকে লেখা অগ্নিকন্যার শেষ চিঠি

মা সবার কাছে মা। তা যেমন দেশের প্রধানমন্ত্রীর কাছে তেমনি  দিন আনা দিন খাওয়া মজুরের কাছেও । বিপ্লবীদের কাছেও তাই। তারাও মাকে ভালবাসেন/ বেসেছেন প্রাণ দিয়ে। তার উত্ত্বল দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন বীরকন্যা প্রীতলতা। মাকে লিখে গেছেন শেষচিঠি। পাহাড়তলী ইউরোপীয় ক্লাব আক্রমণ শেষে পূর্বসিদ্বান্ত অনুযায়ী গুলিবিদ্ধ প্রীতিলতা মুখে পটাসিয়াম সায়ানাইড পুরে দেন। আত্মাহুতির আগের রাতে প্রীতিলতা মায়ের উদ্দেশে এই চিঠিটি লিখেছিলেন। তাঁর মৃত্যুবরণের পর মাষ্টারদা এই পত্রটি প্রীতিলতার মায়ের হাতে পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করেন। আসুন আমরা চোখ রাখি মাকে লেখা অগ্নিকন্যার শেষ চিঠিতে-   মাগো, তুমি আমায় ডাকছিলে? আমার যেন মনে…

Read More

প্রেমপত্র

জানো শাপলা, আজ আমার এখানে হঠাৎ করে বৃষ্টি হচ্ছে। আমি ভিজছি, কেন জানি আজ ভিজতেও ভালো লাগছে। তুমি যদি পাশে থাকতে তবে আরও মজা হতো। তুমিও ভিজতে পারতে।  দুজনে অনেক আনন্দ করতাম বুঝলে। তোমার অনুপস্থিতি আজ আমায় ভিজতে সহযোগিতা করছে। খুব ভালো লাগছে জানো তো! তবে বৃষ্টিরা ক্ষনে ক্ষনে আমায় বলে উঠে, শফিক তুমি বড়ই পাগল হয়ে গেছো।  শীতের সকালে অমন করে ভিজছো কেন? দেখ বৃষ্টিরাও আজ স্বার্থপর হয়ে গেছে। আমার ভালোলাগাটাও তারা বুঝতে পারলো না। তুমি পাশে থাকলে না, দেখতে পারতে। পাখিরাও আজ গান গাইছে না। আগের দিনগুলিতে দেখেছি…

Read More

তোমার ভালো থাকার প্রত্যাশী

প্রিয় আকাশ, এক অজানা প্রেম তুমি, নামটাও আমার দেয়া ছিলো আর নিজের অজান্তেই কখন যে তোমাকে ভালোবেসে ফেলেছি, তোমার প্রেমে পড়ে গেছি তা শুধুই এই মনটাই জানে। জানিনা তুমি কে…..আর কেনইবা ডাকি তোমায় আমি, তোমার জন্য রাত জাগি আর একলাই বসে থাকি, তুমিতো অদেখা সেই স্বপ্ন, তুমি আমার কল্পনার রাজকুমার। মনকে প্রশ্ন করলাম “মন তুই কি চাস? যাকে ভুলে যেতে চাই তাকে বারবার কেন মনে করাস”? মন কি উত্তর দিলো, জানো তুমি? “ভুলে যাওয়ার জন্য তো আমাকে ব্যবহার করিস নি। আমাকে তো বলেছিলি সারাজীবন যাতে আমি তোর ভালোবাসাকে মনে করিয়ে…

Read More

পঙ্খী

পঙ্খী, মাত্রই ঘুম থেকে উঠে লিখতে বসলাম। ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখছিলাম, তুমি আমাকে চিঠির জন্যে ঝাড়ি দিচ্ছো। তাই ভয় পেয়ে লিখতে বসলাম। রাতে তোমার সাথে কথা হয়নি, একা একা শুয়ে থাকলে অদ্ভুত সব চিন্তা মাথায় বাসা বাঁধে। পঙ্খী, আমি অত্যন্ত দুঃখিত যে তোমার লেখার এই প্যাডটি আমি তোমায় সময়মতো দিতে পারিনি। তুমি সব সময় হাসি খুশি থাকবে, কারণ তুমি হাসিখুশি না থাকলে বা চটপট কথা না বললে আমার মন খারাপ হয়ে যায়। তখন নিজের অজান্তেই অনেকের সাথে খারাপ ব্যবহার করে ফেলি। তুমি সব সময় হাসিখুশি থাকবে, আমার সাথে চটপট কথা…

Read More