পঙ্খী

পঙ্খী,

মাত্রই ঘুম থেকে উঠে লিখতে বসলাম। ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখছিলাম, তুমি আমাকে চিঠির জন্যে ঝাড়ি দিচ্ছো। তাই ভয় পেয়ে লিখতে বসলাম। রাতে তোমার সাথে কথা হয়নি, একা একা শুয়ে থাকলে অদ্ভুত সব চিন্তা মাথায় বাসা বাঁধে। পঙ্খী, আমি অত্যন্ত দুঃখিত যে তোমার লেখার এই প্যাডটি আমি তোমায় সময়মতো দিতে পারিনি। তুমি সব সময় হাসি খুশি থাকবে, কারণ তুমি হাসিখুশি না থাকলে বা চটপট কথা না বললে আমার মন খারাপ হয়ে যায়। তখন নিজের অজান্তেই অনেকের সাথে খারাপ ব্যবহার করে ফেলি। তুমি সব সময় হাসিখুশি থাকবে, আমার সাথে চটপট কথা বলবে, আর কারও সাথে কিছু হলে বা আমার সাথে কিছু হলে অথবা তুমি যা ফিল কর সবকিছু আমাকে বলবে। তুমি যখন তোমার কথা বলো আমি তখন অবাক হয়ে সব শুনি, আমার খুব ভাল লাগে তোমার কথা শুনতে। জানো পঙ্খী, আমার না মাঝে মাঝে মন চায় তোমাকে বিস্কুটের মত খেয়ে ফেলি। ঠিক এখনই আমার মন চাচ্ছে। কেন জানো? আমি প্যাডের পাতায় তোমাকে দেখতে পাচ্ছি। মনে হচ্ছে তুমি আমার দিকে তাকিয়ে হাসছো। তাই আমার মন চাচ্ছে

তোমাকে বিস্কুটের মতো খেয়ে ফেলি। তোমার বিষণ্নতা আমাকে সব সময় পীড়া দেয়। আমার ভাল লাগে না যখন দেখি তোমাকে মন খারাপ করে থাকতে। জানো আমি এখন মনে মনে অনেক হাসছি। কারণটা হলো আমার চিঠি লেখার অভ্যাস একদম নেই। পরীক্ষার হলে আমি চিঠির বদলে এ্যাপলিকেশন দিতাম। কিন্তু এখন মনে হচ্ছে অভ্যাসটা হয়ে যাবে, কারণ তুমি আমাকে কামড় দিবা চিঠি না লিখলে। জানো ঝাড়ি শুনতেও আমার অনেক ভাল লাগে।আমাকে তুমি মাঝে মাঝে অনেক ঝাড়ি দিবা। ভালবাসি তোমাকে সবসময়।

তোমার প্রতিকৃতি

Author: অনন্যা

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Related posts