রবি ঠাকুরের বিয়ের চিঠি ( আমন্ত্রণপত্র)

চিঠি শব্দটা শোনামাত্র আজও চনমনিয়ে ওঠে মন। একটা চরকোনা অথবা লম্বা খাম, তার ওপরে হাতে লেখা কয়েকটা লাইন, পোস্টাফিসের ছাপ কত না প্রিয় ছিল একসময়। এখনও আছে আমাদের মতো পুরোনো দিনের মানুষের কাছে। লাল রংয়ের ডাকঘর , পোস্টমাস্টার, তার সাইকেলের টুংটাং কতই না প্রত্যাশিত ছিল তখন। এখন সে দিন হয়েছে বাসি। চিঠির জায়গা নিয়েছে ইনবক্স, চির​কুট এখন এসএমএস। ভাইভার ইনষ্টাগ্রাম টুইটার আরো কতো কি! হারিয়ে গেছে আবেগ। যখন আবেগ ছিল সেই সময়ের চিঠি

রবি ঠাকুরের বিয়ের চিঠি ( আমন্ত্রণপত্র)

প্রিয় বাজু..
আগামী রবিবার ২৪ অগ্রহায়ণ তারিখে শুভদিনে শুভলগ্নে আমার পরমাত্মীয় শ্রীমান রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের শুভবিবাহ হইবেক। আপনি তদুপলক্ষে বৈকালে উক্ত দিবসে ৬নং জোড়াসাঁকোয় দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুরের ভবনে উপস্থিত থাকিয়া বিবাহাদি সন্দর্শন করিয়া আমাকে এবং আত্মীয়বর্গকে বাধিত করিবেন।

ইতি
অনুগত
শ্রী রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

বিয়ের সময় কনের বয়স ছিল ১০ বছর হতে তিন মাস বাকি। বর ২২বছর ৭ মাস। বিয়ের কনে নিজের বাড়িতে নয়, বরের বাড়িতে রয়েছে। কন্যার না ভবতারিণী। বাড়ি যশোর জেলার ( এখন খুলনা) ফুলতলা। বাবা বেণীমাধব আর মা দাক্ষায়নী। কন্যা শ্বশুরবাড়িতে এসে নতুন নাম পান মৃনালিনী।

Author: সংগৃহীত

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Related posts

মতামত দিন Leave a comment