ছোট্টবেলার ঈদ

ছোট্টবেলার ঈদ, অনুপা দেওয়ানজী

ছোট্টবেলার ঈদের দিনটির কথা ভাবনায় আসলেই একসাথে কত প্রিয়জনের মুখ যে স্মৃতির পাতায় এসে ভিড় করে। কাকে ফেলে  কাকে যে দেখবো  নিজেই বুঝতে পারি না। সে ভিড়ে কে নেই? বন্ধুরা, পাড়া প্রতিবেশী,অধ্যাপক সোলেমান কাকা,হাবিবুর রহমান কাকা,কাকীমা, মায় আমাদের কলেজের দারোয়ান, পিওন, কাজের লোক সিরাজির মা।   কত জনের নাম বলবো! বড় হয়েছি কলেজ ক্যাম্পাসে। সুন্দর এক অসাম্প্রদায়িক পরিবেশে।সে পরিবেশে কখনো মনে হয়নি কে হিন্দু, কে মুসলমান, কে বৌদ্ধ আর কে খৃষ্টান। মনে আছে ঈদ  বা পূজো আসার আর কতদিন বাকি তা নিয়ে  আমাদের  সব বন্ধুদের মধ্যে উৎসাহের শেষ ছিলো না।…

Read More

শ্রদ্ধাঞ্জলি

father and son

না ফেরার ওই দেশটার কথা মাঝে মাঝে ভাবি আমি। জানিনা দেশটি দেখতে কেমন ভালো আছো বাবা তুমি? কত দিন বাবা বেহালা শুনিনা বাজাও কি সেই সুর? শুনিনা তোমার সেতারের সেই ঝংকার সুমধুর। এখানে যেমন শেখাতে আমাকে ছায়ানট,ভৈরবী? লেখো কি আজও কবিতা বা গান তুমি ছিলে মোর কবি। অধ্যাপনার মহান ব্রততে জীবন বিলিয়ে দিয়েছো ওখানে কি তুমি এমন জীবন তেমনটি বাবা পেয়েছো? আছে কি তোমার প্রিয় শিষ্যেরা এখানে যেমন ছিলো? নাই যদি পাও তাহলে কিভাবে সময় কাটাও বলো? তোমার স্নেহের সেই খুকু ডাক শুনতে পাইনা আর তুমি ছাড়া যেন পৃথিবী আমার…

Read More

আবে জমজম ও বিবি মরিয়মের কাহিনি

ওসমানী উদ্যানের সদর ফটকে যে কামানটি শায়িত অবস্থায় রয়েছে বেশ কিছুকাল আগেও কামানটি গুলিস্তানের সামনে চৌরাস্তায় শায়িত ছিলো। তারও আগে কামানটি ছিলো বুড়িগঙ্গা নদীর পাড় ঘেঁষে। সেটাই এখন সদরঘাটের বর্তমান লঞ্চঘাট। সে যুগে সদরঘাটের এই কামানটির প্রখ্যাতি ছিলো বাংলার ঘরে ঘরে। বহু ধর্মপ্রাণ হিন্দু এই কামানটিকে পবিত্র মনে করে তেল, সিঁদুর দিয়ে নাকি পূজোও করতো। মানতও করতো অনেকে। ছোট ছোট মেয়েরা কামান ঘেরা দেয়ালের পাশের গাছে চড়ে লুকিয়ে লুকিয়ে নাকি কামানটিকে দেখতো। কিংবদন্তি আছে এটি একজোড়া কামানের একটি। অন্যটি বুড়িগঙ্গায় জ্যান্ত অবস্থায় রয়েছে এবং সেটি জলের নীচে চলাফেরাও করে। সেটি…

Read More