বিদেশীদের চোখে বাংলাদেশের গণহত্যা -৮

(পূর্ব প্রকাশিতের পর​) অ্যান্থনি মাসকারেনহাসের রিপোর্ট তিন গুলিতে একটি প্রাণ ঢ্যাঙা পাঞ্জাবি অফিসার ইফতেখার তার কাজের ফিরিস্তি দিতে চাইল। আরেক দিনের কথা। তার সঙ্গে গাড়িতে করে কুমিল্লা সার্কিট হাউসে যাচ্ছিলাম। ওই দিনই সে তার সর্বশেষ বীরত্বব্যঞ্জক কর্মের বর্ণনা দেয়। “আমরা এক বুড়োকে পাই,” সে বললো, “জারজটি দাড়ি রেখেছিল। ভাব দেখাচ্ছিল সে খাঁটি মুসলমান। নাম বললো আবদুল মান্নান। তৎক্ষণাৎ আমরা ডাক্তারি পরীক্ষায় নেমে পড়লাম এবং খেল খতম।” ইফতিখার বলে চললো, “আমি ওই মুহূর্তেই ওটাকে শেষ করে দিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু আমার লোকেরা বললো এই ধরনের একটি জারজের জন্যে তিনটি গুলির দরকার। প্রথম…

Read More

বিদেশীদের চোখে বাংলাদেশের গণহত্যা -৭

(পূর্ব প্রকাশিতের পর​) অ্যান্থনি মাসকারেনহাসের রিপোর্ট ঠান্ডাপানিতে চুমুক এবং মৃত্যুদন্ডাদেশ ডাবের পানিতে চুমুক দিতে দিতে মৃত্যুদন্ডাদেশ দেয়া হল। আমাকে বলা হল যে, দু’জন বন্দি হিন্দু, তৃতীয়জন একজন “ছাত্র” এবং চতুর্থজন একজন আওয়ামী লীগ সংগঠক। আর “চোর”টি একটি কিশোর নাম-সিবাসতিয়ান। তাকে ধরা হয়েছে যখন সে তার এক হিন্দু বন্ধুর বাড়ির ঘরের মালামাল নিজের বাড়িতে নিয়ে আসছিল। পরে সন্ধ্যায় এই লোকদের দেখলাম। এক দড়ি দিয়ে তাদের হাত-পা আলগা করে বাঁধা। সার্কিট হাউজ চত্বরের রাস্তায় ওপর শুইয়ে রাখা হয়েছে। সান্ধ্য আইন বলবৎ হওয়ার কিছু পর, তখন সন্ধ্যে ছ’টা হবে, একদল ময়না তখন কর্কশ…

Read More

বিদেশীদের চোখে বাংলাদেশের গণহত্যা-৬

(পূর্ব প্রকাশিতের পর​) অ্যান্থনি মাসকারেনহাসের রিপোর্ট হিন্দুর বিলয়ন অস্থি মজ্জায় কাঁপন ধরানো সামরিক কার্যক্রমের দুটি স্পষ্ট বৈশিষ্ট্য দৃশ্যমান। হত্যার মতো অপ্রিয় শব্দের বদলে একটি কোমল শব্দ ব্যবহার করতে কর্তৃপক্ষ অধিকতর পছন্দ করে। পূর্ব বাংলাকে পশ্চিম পাকিস্তানের একটি বশ্য উপনিবেশ বানানোর যে প্রক্রিয়া চলছিল,  সাধারণভাবে উচ্চারিত এবং সরকারীভাবে বার বার প্রজ্ঞাপিত “দুষ্কৃতকারী” “অনুপ্রবেশকারী” শব্দ দুটি হচ্ছে সেই ধাঁধার অংশই-যা দিয়ে বিশ্বকে বোঝানো হচ্ছে। প্রচারণাটা ছুঁড়ে ফেলে দিলে বাস্তবতাটা দাঁড়াবে ‘উপনিবেশকরণ’ এবং ‘হত্যাযজ্ঞ’। হিন্দু বিলয়নের যৌক্তিকতা পূর্ব পাকিস্তানের সামরিক গভর্নর লেফটেন্যান্ট জেনারেল টিক্কা খান তার এক রেডিও ভাষণে শব্দের মারপ্যাচে তুলে ধরেছিলেন।…

Read More

বিদেশীদের চোখে বাংলাদেশের গণহত্যা – ৫

(পূর্ব প্রকাশিতের পর​) অ্যান্থনি মাসকারেনহাসের রিপোর্ট পরমুহূর্তে রাথোর আবার বললো, অবশ্যই আমরা শুধু হিন্দুই মারছি। আমরা সৈনিক। বিদ্রোহীদের মতো কাপুরুষ নই। ওরা আমাদের নারী এবং শিশুদের হত্যা করেছে। পূর্ব বাংলার বিস্তীর্ণ সবুজ ভূমির উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া শোণিত ধারা দেখতে পেলাম। প্রথম দেখি অবাঙালিদের উপর পরিচালিত হত্যাকান্ড। সেটা ছিল তাদের উপর বাঙালিদের একই ধরনের বন্য ঘৃণার প্রকাশ। আর এখন দেখছি আরেকটি হত্যাযজ্ঞের শিকার হিন্দুরাই শুধু নয়-যারা এখানকার পূর্ব বাংলার সাড়ে সাত কোটি জনসংখ্যার ১০ শতাংশ, হাজার হাজার মুসলমানও। এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষক, আওয়ামী লীগ ও বামপন্থী রাজনৈতিক দলের কর্মী এবং…

Read More