বিদেশীদের চোখে বাংলাদেশের গণহত্যা -৮

(পূর্ব প্রকাশিতের পর​) অ্যান্থনি মাসকারেনহাসের রিপোর্ট তিন গুলিতে একটি প্রাণ ঢ্যাঙা পাঞ্জাবি অফিসার ইফতেখার তার কাজের ফিরিস্তি দিতে চাইল। আরেক দিনের কথা। তার সঙ্গে গাড়িতে করে কুমিল্লা সার্কিট হাউসে যাচ্ছিলাম। ওই দিনই সে তার সর্বশেষ বীরত্বব্যঞ্জক কর্মের বর্ণনা দেয়। “আমরা এক বুড়োকে পাই,” সে বললো, “জারজটি দাড়ি রেখেছিল। ভাব দেখাচ্ছিল সে খাঁটি মুসলমান। নাম বললো আবদুল মান্নান। তৎক্ষণাৎ আমরা ডাক্তারি পরীক্ষায় নেমে পড়লাম এবং খেল খতম।” ইফতিখার বলে চললো, “আমি ওই মুহূর্তেই ওটাকে শেষ করে দিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু আমার লোকেরা বললো এই ধরনের একটি জারজের জন্যে তিনটি গুলির দরকার। প্রথম…

Read More

বিদেশীদের চোখে বাংলাদেশের গণহত্যা – ৫

(পূর্ব প্রকাশিতের পর​) অ্যান্থনি মাসকারেনহাসের রিপোর্ট পরমুহূর্তে রাথোর আবার বললো, অবশ্যই আমরা শুধু হিন্দুই মারছি। আমরা সৈনিক। বিদ্রোহীদের মতো কাপুরুষ নই। ওরা আমাদের নারী এবং শিশুদের হত্যা করেছে। পূর্ব বাংলার বিস্তীর্ণ সবুজ ভূমির উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া শোণিত ধারা দেখতে পেলাম। প্রথম দেখি অবাঙালিদের উপর পরিচালিত হত্যাকান্ড। সেটা ছিল তাদের উপর বাঙালিদের একই ধরনের বন্য ঘৃণার প্রকাশ। আর এখন দেখছি আরেকটি হত্যাযজ্ঞের শিকার হিন্দুরাই শুধু নয়-যারা এখানকার পূর্ব বাংলার সাড়ে সাত কোটি জনসংখ্যার ১০ শতাংশ, হাজার হাজার মুসলমানও। এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষক, আওয়ামী লীগ ও বামপন্থী রাজনৈতিক দলের কর্মী এবং…

Read More

সম্পাদকীয় (৭ই মার্চ)

7th March Speech of Sheikh Mujibur Rahman

আজ ঐতিহাসিক ৭ মার্চ। আমাদের স্বাধীনতার বীজতলা। এক মহানায়কের বজ্রকণ্ঠে সংগ্রামের মন্ত্রোচ্চারণের দিন। দৃঢ় শপথ আর অমিত প্রত্যয়ে বেগবান হবার দিন। লক্ষ কোটি সালাম জানাই সেই মহানায়ককে। একটি স্বাধীন দেশের মুক্ত মাটিতে দাঁড়িয়ে দৃপ্ত কন্ঠে কথা বলবার স্বপ্ন যিনি দেখিয়েছিলেন। যিনি ছিলেন আমাদের বরাভয় । আমাদের বাতিঘর। আর সালাম জানাই সেই বীর ভাই-বোনদের নিজের রক্তের তেজে ধুয়ে যারা এনেছেনে এই স্বাধীন স্বদেশ । সম্ভ্রম আর কান্নার বিনিময়ে এ দেশ যাদের অর্জন সেই বোনদের। আর নিজের অঙ্গ খুইযে দেশকে যারা পূর্ণাঙ্গ করেছেন সেই মানুষগুলিকে। আমাদের মুক্তিযোদ্ধা ভাই-বোন, তোমরা আমাদের সূর্যসন্তান। তোমরা…

Read More

গেটিসবার্গ থেকে রেসকোর্স

7march

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রনায়ক ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ বিভিন্ন  সময়ে তাদের জনগণের উদ্দেশ্যে বক্তৃতা দিয়ে থাকেন। এর মধ্যে কোন কোন বক্তৃতা স্থান ও সময়কে অতিক্রম করে কালজয়ী হয়ে থাকে। ১৮৬৩ সালের ১৯ নভেম্বর গেটিসবার্গে দেয়া আব্রহাম লিংকনের বক্তৃতা, ১৮১৪ সালের ২০এপ্রিল ইম্পেরিয়ল গার্ড রেজিমেন্টের উদ্দেশ্যে প্রদত্ত নেপোলিয়ান পোনাপার্টের ভাষণ, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়ে দেয়া উইনস্টন চার্চিলের কয়েকটি ভাষণ, ১৯৪০ সালের ১৮ জুন ফরাসীবাসীর উদেশ্যে দেয়া চার্লস দ্য গলের ভাষণ, ১৯২২ সালের ১৮ মার্চ অসহযোগ আন্দোলনকালে গ্রেফতরের পর আহমেদাবাদে সি এন ব্রুূমফিল্ডের আদালতে দেয়া মহাত্মা গান্ধীর জবানবন্দীর বক্তব্য, ১৯৪৪ সালের জুলাই মাসে আজাদ…

Read More

৭ মার্চের ভাষণ এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান​

আজ ঐতিহাসিক ৭ মার্চ । আসুন একবার ফিরে দেখি ১৯৭১ এর এই দিন আর তার আগের প্রেক্ষাপট । ১৯৭০ সালে আওয়ামী লীগ পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে। কিন্তু পাকিস্তানের সামরিক শাসকগোষ্ঠী এই দলের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরে বিলম্ব করতে শুরু করে। প্রকৃতপক্ষে তাদের উদ্দেশ্য ছিল, যে কোনভাবে ক্ষমতা পশ্চিম পাকিস্তানী রাজনীতিবিদদের হাতে কুক্ষিগত করে রাখা। এই পরিস্থিতিতে পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট জেনারেল ইয়াহিয়া খান ৩রা মার্চ জাতীয় পরিষদ অধিবেশন আহ্বান করেন। কিন্তু অপ্রত্যাশিতভাবে ১লা মার্চ এই অধিবেশন অনির্দিষ্টকালের জন্য মুলতবি ঘোষণা করেন। এই সংবাদে পূর্ব পাকিস্তানের জনগণ বিক্ষোভে ফেটে পড়ে।…

Read More

বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণের পূর্বাপর

Bangabondhu

১ মার্চ ইয়াহিয়া খান জাতীয় পরিষদের অধিবেশন স্থগিত  ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে  লাখ লাখ মানুষ রাজপথে বেরিয়ে আসে।  অফিস আদালত স্কুল কলেজ হাটবাজার সবকিছু বন্ধ হয়ে যায়। ঢাকাসহ দেশের প্রধান শহরগুলোতে কার্ফু জারি করা হয়।  বিক্ষুব্ধ জনতা সান্ধ্য আইন উপেক্ষা করে অব্যাহতভাবে আন্দোলন চালিয়ে যায়।  এক পর্যায়ে সমারিক জান্তার বুলেটের আঘাতে ঢাকাতে ২৬ জন আর চট্টগ্রামে ১২ জন নিহত হলো। খুলনায় মিছিলে গুলি চালিয়ে হত্যা করা হলো ২১ জনকে। এমনিভাবে যশোর, পাবনা, ফরিদপুর, দিনাজপুর প্রভৃতি জেলাতে নিহত হলো অসংখ্য মানুষ। কিন্তু বিপ্লবী জনতা সকল মৃত্যুকে তুচ্ছ করে বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে দৃঢ়প্রত্যয়ে এগিয়ে…

Read More