তোমার মুনিয়া

স্বপ্নীল স্বপ্ন,
অনেকদিন পর তোমার এই নামে আমি তোমায় ডাকছি। সম্বোধনটা দেখেই তুমি হয়তো চমকে গেছো। হয়তোবা তোমার ভিতর একটু বেশি ভাললাগা কাজ করবে, না হয় ঠোঁটের কোণে হাসির দেখা মিলবে। আমি জানি না কোনটা হবে, তবে এটুকু জানি যে কিছু একটা ফিলিংস হবেই। যা হোক, গত কয়েকদিন ধরে তুমি খুব ব্যস্ত আছো, এর ধারাবাহিকতা মাস তো যাবেই, সামনের মাসের মাঝ বরাবর একটানা যাবে আশা করছি। তোমার এত ব্যস্ততার কারণে আমায় আগের মত সময় দিতে পারো না বলে আমার গায়ে লাগে, কষ্ট হয়। আমি তো এত ব্যস্ত না, ভার্সিটি থেকে এসেই সারাদিন অন্য কোন কাজে ব্যস্ত না থেকে তোমার কথা ভাবি, তোমার সাথে ফোনে কথা বলি। বাট তোমার ব্যস্ততার কারণে আমায় তুমি টাইম কম দাও। আর আমি তো সারাদিন ধরে তোমার ফ্রিটাইমের জন্য ওয়েট করতে থাকি, তাই আমার মাঝে মাঝে খুব কষ্ট হয়, আর যখন কথা বলতে খুব ইচ্ছা ইচ্ছা করে, তখন কিন্তু পারছি না, তখনতো দম বন্ধ হয়ে আসে। এখানে তোমার কোন ফল্ট নাই পাখি, আমি আজ অনেক ভাবলাম এর সল্যুশন কি? দেন বুঝলাম যে, আমি কেবল একতরফা নিজের দিকটাই দেখছিলাম। তোমারও তো কষ্ট হচ্ছে। তারপরও তুমি তোমার দায়িত্ব্ পালন করছো। কোন কাজেই অবহেলা করছো না, তুমি আসলেই পারো জান, তোমার প্রতি দিনকে দিন আমার শ্রদ্ধা আরও বেড়ে যাচ্ছে। জানো, আমিও পড়াশুনা নিয়ে ব্যস্ত হয়ে যাবো কাল থেকে ইনশাআল্লাহ্ । তাহলে আমারও সময় অনেকটা কেটে যাবে। আমি বুঝতেছি তুমি যা করতেছো। তোমার এই ব্যস্ততা তোমার কেরিয়ার এবং আমাদের ফিউচার এর জন্যই। তাই আমাকে তোমার সব কাজে সহযোগিতা দিতে হবে। নিজের মাইণ্ডকে পজেটিভ করতে হবে। তুমি সাথে থাকলে ইনশাআল্লাহ্ আমি পারবো। জান, তুমি লাইফে কখনও কোন কাজ কেরিয়ার রিলেটেড করার সময় আমার কথা মনে করে কাজ থেকে পিছিয়ে পড়বা না, আমায় টাইম দিতে পারবা না, এমনটা ভেবে কোন কাজ বাদ দিবা না, আমিতো তোমার সাথে আছি। ছিলাম এবং থাকবো সবসময়। ভালো থেকো, ভালবাসি, খুব বেশি।

– তোমার মুনিয়া

 

 

Author: অনন্যা

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Related posts