সত্যের প্রতীক

সত্যের প্রতীক অনুপা দেওয়ানজী 

রাত্রিশেষে  আকাশের তারাগুলি তাদের হাতের  প্রদীপের আলোটুকু প্রভাতের নির্মল আলোতে মিশিয়ে দিয়ে একে একে বিদায় নিতে শুরু করেছে ।  দূরে সত্যের প্রতীক ধ্রুবতারা মুগ্ধ চোখে সেই আলোর মিশ্রণের দিকে তাকিয়ে আছে।  

ধ্রুবতারা জানে এই ক্ষণটি বড় পবিত্র।  চাইলেও কোন অন্যায় এই পবিত্র আলোতে কেউ করতে পারে না।

তারাদের দিক থেকে চোখ সরিয়ে সে পৃথিবীর দিকে চোখ ফেরায়। 

একটু পরেই দিগন্ত আলো করে সূর্য আত্মপ্রকাশ করবে।সেই  আলোয় পৃথিবীর মানুষ জেগে উঠবে।শান্ত পৃথিবী কোলাহল মুখর হয়ে উঠবে। কর্মচঞ্চল  মানুষে ছুটবে নিজের কাজে।ধ্রুবতারার এবার বিদায় নেবার সময় হল। অস্ত যাবার আগে  হঠাৎ তার দৃষ্টি আটকে গেলো লেকের ধারের একটি বাড়ির দিকে ।যে বাড়ির লেকের পাড়ে ঝোপালো গাছে গাছে যে পাখিদের এতক্ষণে কিচিরমিচির করার কথা সেই পাখিরা আজ এত নীরব কেন? ধ্রুবতারা বিস্ময়ে তাকিয়ে দেখে এমন একটি পবিত্র  ক্ষণে মারণাস্ত্র হাতে একদল ঘাতক ওই বাড়িটির দিকেই এগিয়ে চলেছে!

ধ্রুবতারা ভাবে,  ওরা কারা?কেনই বা অস্ত্র হাতে ওই বাড়িটাতেই ঢুকলো?

 

খানিক পরেই ভোরের আযানের ধ্বনি আকাশে,বাতাসে অনুরণিত হতে লাগলো।

 প্রার্থনার সময় হয়েছে। ধ্রুবতারার এতদিনের বিশ্বাসকে চূর্ণ করে দিয়ে,   এই পবিত্র ক্ষণকে অমান্য করেই ঘাতকের দল হাতের অস্ত্র উঁচিয়ে বাড়িটিতে প্রবেশ করে। ঘাতকের দল আর কারো বাড়ি নয়,  হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতাকে হত্যা করার সংকল্প নিয়ে ওই বাড়িতে প্রবেশ করেছে।

শুধু জাতির পিতা কে  নয়, সপরিবারে বাড়ির সবাইকে নিষ্ঠুর ভাবে হত্যা করে সদর্পে উল্লাস করতে করতেএক সময়ে তারা বেরিয়ে গেলো।

দু একজন এই নির্মম হত্যাকাণ্ড পর্দার আড়ালে  লুকিয়ে দেখা ছাড়া আর কেউ দেখলো না ,জানলো না। 

বাঙালি জাতির কষ্টে অর্জন করা স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের নীরব সাক্ষী ধ্রুবতারা।  তবে কি সেই স্বাধীনতা আর মুক্তিযুদ্ধের আদর্শকে উলটো দিকে ফিরিয়ে দেবার জন্যে ঘাতকের দল জাতির পিতার পরিবারের সবাইকে হত্যা করে গেল?

সূর্যের আলোয়  পৃথিবী জেগে উঠতে শুরু করেছে তখন। ঘরে ঘরে এই মর্মান্তিক বার্তা  রটে গেছে জাতির জনক আর নেই।আপামর বাঙালি কাঁদছে,দেশ কাঁদছে,জাতি কাঁদছে তাদের প্রাণপ্রিয় বঙ্গবন্ধু আর বেঁচে নেই। 

সত্যের প্রতীক  ধ্রুবতারা তখন ভাবছে,  তার যদি কথা বলার ক্ষমতা থাকতো তাহলে সে জাতির জনকের মতো প্রতিটি  বাঙালির ঘরে ঘরে গিয়ে বলতো, কেঁদো না আমি ধ্রুবতারা, সত্যের প্রতীক।   বিশ্বাসঘাতকের দল কখনও জয়লাভ করতে পারে না।

সত্যের প্রতীক ধ্রুবতারার মতোই সত্য ছিলেন আমাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু। 

শতকোটি প্রণাম তোমাকে পিতা।

অনুপা দেওয়ানজী 
অনুপা দেওয়ানজী

 

%d bloggers like this: